ওয়াশিংটন: ভারত বিদ্বেষ এবং ভারতে বিদ্বেষ ছড়ানোর কারণে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিল ফেসবুক। বন্ধ করে দেওয়া হল শতাধিক ফেসবুক অ্যাকাউন্ট, পেজ এবং গ্রুপ।

সোমবার ফেসবুকের পক্ষ থেকে এই খবর জানানো হয়েছে। ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম মিলিয়ে মট ১০৩টি পেগ, গ্রুপ এবং অন্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যেগুলি পাকিস্তানের মিলিটারি পেজের নামে পারিচালনা করা হতো।

একই সঙ্গে আরও জানানো হয়েছে যে এই সকল অ্যাকাউন্টগুলির মাধ্যমে ভারত বিদ্বেষী নানাবিধ পোস্ট করা হতো। ভারতের অভ্যন্তরীণ নানাবিধ বিষয় যেমন রাজনীতি, সামাজিক সহ অন্যান্য বিষয় নিয়েও পোস্ট করা হট। যেগুলী থেকে ভারতীয় সমাজে অসন্তোষের সৃষ্টি হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা দেখা দিছহিল। অনেক জায়গায় পাকিস্তানী ফেসবুক অ্যাকাউণতের পোস্ট থেকে হিংসা ছড়িয়েছে বলেও জানা গিয়েছে।

আরও বড় বিষয় হচ্ছে, পাকিস্তান সেনাবাহিনীর নামে পরিচালিত এই সকল ফেসবুক পেজ বা অ্যাকাউন্টগুলো থেকে হিংসা ছড়ানো হচ্ছিল কাশ্মীরের মাটিতেও। নানাবিধ বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ে তৈরি করা হয়েছিল ফেসবুক গ্রুপ। যার মাধ্যমে উপত্যকায় বিচ্ছন্নতাবাদ এবং হিংসায় মদত দেওয়া হচ্ছিল।

এই সকল কর্মকাণ্ডের সঙ্গে ২.৮ মিলিয়ন অ্যাকাউন্ট জড়িত ছিল বলে জানিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে পাকিস্তানের বন্ধ হয়ে যাওয়া ১০৩টি অ্যাকাউণতের সঙ্গে প্রায় ৪৭০০ গ্রুপ বা পেজ জড়িত ছিল। এছাড়াও ১০৫০গুলি ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টও প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে যুক্ত ছিল সেই সকল অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে।

ফেসবুকের পক্ষ থেকে জানানো হয়য়েছে যে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর নাম নিয়ে পড়শি রাষ্ট্রে হিংসা ছাড়ানোর চেষ্টা করা হলেও পাক আর্মি কর্তারা কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করছিল না। নিজের পেজ বা অ্যাকাউন্টে এই বিষয়গুলি নিয়ে খুব মৌন থাকতেন তাঁরা। যা ভালো চোখে দেখেনি ফেসবুক। সেই কারণেই সন্দেহজনক অ্যাকাউন্টগুলি সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়ার মতো কড়া সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার সম্রাটকে।

পাকিস্তানের সেনার নামাঙ্কিত অ্যাকাউণত ছাড়াও ভারতের রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধেও কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে ফেসবুক। লোকসভা ভোটের মুখে ‘ফেক’ চিহ্নিত করে কংগ্রেসের সঙ্গে সম্পর্ক যুক্ত ৬৮৭ পেজ ও প্রোফাইল ওড়ালো ফেসবুক কর্তৃপক্ষ৷

ফেসবুকের পক্ষ থেকে সোমবার বলা হয়, যে সমস্ত ব্যাক্তির প্রোফাইল সারানো হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে তদন্তে দেখা গিয়েছে, ওইসব ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ভুয়া একাউন্ট খুলে সেগুলো থেকে নানা গ্রুপে জয়েন করে নিজেদের পোস্ট, ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে উত্তেজনা বৃদ্ধি করার চেষ্টা চলছে৷