উন্নয়নশীল দেশগুলিতে মানুষকে অর্থ পরিশোধ করে ওয়াই-ফাই ব্যবহার করতে দেবে এমন নতুন এক অ্যাপ আনল ফেসবুক। নিজেদের বিতরণ করা ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কের সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করে চলবে ‘এক্সপ্রেস ওয়াই-ফাই’ নামের এই অ্যাপ। ইতোমধ্যে গুগল প্লে স্টোর-এ এই অ্যাপ আনা হয়েছে। বর্তমানে শুধু ইন্দোনেশিয়া আর কেনিয়াতে এই অ্যাপের পরিষেবা পাওয়া যাচ্ছে।

এই অ্যাপ ইউজারদের আরও সহজে ডেটা প্যাক কিনতে ও কাছের হটস্পট খুঁজে পেতে সাহায্য করবে এই অ্যাপ। এর আগে এক্সপ্রেস ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কে ঢুকতে গেলে ইউজারকে মোবাইল ডিভাইসের ওয়েব ব্রাউজার চালু করতে হত বা স্থানীয় কোনও টেলি সংস্থবার কাছ থেকে কোনও একটি অ্যাপ ডাউনলোড করতে হত। টেলি সংস্থার কাছ থেকে অ্যাপ ডাউনলোডের ক্ষেত্রে স্মার্টফোনের সেটিংস রিকনফিগার করতে বলা হয়। আর এতদিন চলে আসা এই দুই উপায়ের কোনোটিতেই ইউজারদের আশপাশের হটস্পট খুঁজে দেওয়া হয় না বলেই জানাচ্ছেন বেশ কিছু সংবাদমাধ্যম।

অ্যাপটি শুধু দুটি দেশেই পাওয়া গেলেও, বর্তমানে স্থানীয় পরিষেবা হিসেবে পাঁচটি দেশে এক্সপ্রেস ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কের সেবা দিচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় এই সোশ্যাল মিডিয়াটি। এই দেশগুলো হচ্ছে- কেনিয়া, ভারত, তানজানিয়া, নাইজেরিয়া আর ইন্দোনেশিয়া।

এই ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কের জন্য ফেইসবুক স্থানীয় যেসব ব্যবসায় সংস্থা ওয়াই-ফাইট হটস্পট পরিচালনা করছে সেগুলোর উপর নির্ভর করে। এই হটস্পটগুলো স্থানীয় ইন্টারনেট পরিষেবা সংস্থা বা আইএসপিগুলোর নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে মানুষকে প্রচলিত ধীরগতির মোবাইল ইন্টারনেট সংযোগের চেয়ে উচ্চগতির ইন্টারনেট ব্যবহার করতে দেয়।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।