সেন্ট জোনস: পলাতক হীরে ব্যবসায়ী নীরব মোদী লন্ডনে গ্রেফতার হয়েছেন বুধবার। এদিনই খবর পাওয়া গেল আরও এক পলাতক ব্যবসায়ীর। মেহুল চোকসিকে প্রত্যর্পণের প্রক্রিয়া শুরু হল অ্যান্টিগুয়ায়।

পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংক প্রতারণায় অভিযুক্ত মেহুল চোকসি এই মুহূর্তে অ্যান্টিগুয়ায় রয়েছে। জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই দেশের হাতে উপযুক্ত তথ্য সহ নথি তুলে দিয়েছে ইডি ও সিবিআই। ঠিক এইভাবেই নীরব মোদীকে প্রত্যর্পণের জন্য আবেদন করেছিল ভারত সরকার। তাই মেহুলের পরিণতিও একই হবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

অ্যান্টিগুয়ার বিদেশমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর এমনই আশ্বাস দিয়েছেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ৷ জানালেন বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রাভেশ কুমার৷

গত বছরেই মেহুল চোকসির প্রত্যর্পণ ইস্যু নিয়ে দীর্ঘক্ষণ কথা হয় দুই দেশের বিদেশমন্ত্রীর৷ বৈঠকে সেদেশের বিদেশমন্ত্রীকে নয়াদিল্লির উদ্বেগের কথা জানান সুষমা৷ তিনি বলেন অপরাধ করে দেশ থেকে পলাতক মেহুল চোকসি৷ তাকে ফিরিয়ে আনা প্রয়োজন৷ দ্রুত এই সমস্যার সমাধান প্রয়োজন৷ অ্যান্টিগুয়ার পক্ষ থেকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

চোকসির প্রত্যর্পণ ইস্যুতে ভারতের পক্ষ থেকে সব ধরণের সহযোগিতা করার আশ্বাসও দেন সুষমা স্বরাজ।

এরপর চলতি বছরের শুরুতে ভারতের নাগরিকত্ব ত্যাগ করেন মেহুল চোকসি৷ সেই সঙ্গে ছেড়ে দেন দেশের পাসপোর্টও৷ অ্যান্টিগুয়া সরকারের কাছে জমা দিয়ে আসেন পাসপোর্টও৷ দেশে যাতে ফিরে আসতে না হয় তার জন্য এমন পদক্ষেপ নেন মেহুল চোকসি।

২০১৭ সালে অ্যান্টিগুয়ার নাগরিকত্ব পান ১৩ হাজার কোটি টাকা ব্যাংক জালিয়াতিতে অভিযুক্ত মেহুল চোকসি৷ আর তার কয়েকদিন পরেই পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংক কেলেঙ্কারিতে নাম জড়ায় মেহুলের। শুরু হয় তদন্ত৷ চোকসি আদালতকে জানান, তাঁর শরীরের অবস্থা ভালো নয়৷ সেই কারণে অ্যান্টিগুয়া থেকে ৪১ ঘণ্টা জার্নি করে ভারতে আসা সম্ভব নয়৷ এতক্ষণ বিমানে চলার মতো শারীরিক শক্তি তাঁর নেই।