কলকাতা: পুজোয় ভিড় বাড়তে শুরু করেছে ইতিমধ্যেই। আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে বৃষ্টি আসবে পুজোয়। তাই দেরি না করে তৃতীয় থেকেই নেমেই মানুষের ঢল। শুধু কলকাতা নয়, শহরের বাইরে থেকেও অনেকে আসছেন ঠাকুর দেখতে। এবার সেই ভিড় সামলাতে একগুচ্ছ বাড়তি ট্রেনের কথা ঘোষণা করল রেল।

পূর্ব এবং দক্ষিণ-পূর্ব রেল একগুচ্ছ ট্রেনের কথা ঘোষণা করেছে। শুধু দূরপাল্লার ট্রেনই নয়, হাওড়া ও শিয়ালদহ বিভাগে শহরতলিতে বিশেষ ট্রেন চালানোর কথাও ঘোষণা করেছে পূর্ব রেল।

ভিড় সামাল দিতে গত ৩০ সেপ্টেম্বর কলকাতা ও আলিপুরদুয়ারের মধ্যে ন’জোড়া বিশেষ ট্রেন চালানোর কথা ঘোষণা করা হয়েছে। কলকাতা থেকে ট্রেনগুলি ছাড়ছে প্রতি বুধ ও রবিবার। ফিরতি ট্রেনগুলি আলিপুরদুয়ার থেকে ছাড়ছে প্রতি বৃহস্পতি ও সোমবার। পূর্ব রেল হাওড়া বিভাগে সপ্তমী, অষ্টমী এবং নবমীর রাতে চার জোড়া করে বিশেষ লোকাল ট্রেন চালাবে।

সপ্তমী থেকে দশমী পর্যন্ত বিকেল তিনটে পর্যন্ত রবিবারের সূচি অনুসরণ করেই লোকাল ট্রেনগুলি চালানো হবে। শিয়ালদহ বিভাগে পঞ্চমী, ষষ্ঠী, সপ্তমী, অষ্টমী এবং নবমীর রাতে বিভিন্ন গন্তব্যে ১০ জোড়া করে বিশেষ লোকাল ট্রেন চালানো হবে। সপ্তমী থেকে দশমী দুপুর ২টো পর্যন্ত রবিবারের সূচি অনুসরণ করেই ট্রেন চালানো হবে।

দক্ষিণ-পূর্ব রেল গত ১ অক্টোবর বিভিন্ন গন্তব্যের জন্য একগুচ্ছ বিশেষ দূরপাল্লার ট্রেন ঘোষণা করেছে। তার মধ্যে শালিমার-ভঞ্জপুর-শালিমার রুটে ১৩ জোড়া বিশেষ ট্রেন চালানো হবে। শালিমার থেকে ট্রেনগুলি ছাড়বে প্রতি বৃহস্পতিবার। ট্রেনগুলি ওদিক থেকে ছাড়বে প্রতি শনিবার। ওইদিনই দক্ষিণ-পূর্ব রেল ভঞ্জপুর-পুরী-ভঞ্জপুর রুটে ১৩ জোড়া বিশেষ ট্রেনও ঘোষণা করেছে।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর আরও একগুচ্ছ বিশেষ ট্রেন চালানোর কথা ঘোষণা করেছিল তারা। তার মধ্যে রয়েছে সাঁতরাগাছি-পুরী-সাঁতরাগাছি বিশেষ ট্রেন, শালিমার-পুরী-সাঁতরাগাছি এসি স্পেশাল ট্রেন, সাঁতরাগাছি-চেন্নাই-সাঁতরাগাছি স্পেশাল ট্রেন। এছাড়াও, সাঁতরাগাছি থেকে নিউ জলপাইগুড়ি ও পুদুচেরি সহ অন্যান্য গন্তব্যের জন্যও বিশেষ ট্রেন ঘোষণা করা হয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।