বালুরঘাটঃ পরকীয়ায় মজেছে মন। আর তাই পরকীয়া চালিয়ে যেতে কোন কিছুকেই বাধা হতে দেওয়া যাবে না। তা সেই বাধা স্বামীই হন না কেন। প্রয়োজনে স্বামীকে খুনের চেষ্টা করতেও কুন্ঠা বোধ করলেন না পরকীয়ায় পাগল স্ত্রী। দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটে এমনই এক ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনায় পুলিশের কাছে অভিযোগও জমা পড়েছে স্ত্রীর বিরুদ্ধে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, পেশায় শিক্ষক তথা প্রাক্তন সেনা জওয়ান অলোক চক্রবর্তীকে(ছদ্মনাম) তাঁর স্ত্রী অভিনব কায়দায় ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে খুনের চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ। ঘুমের ট্যাবলেট খেয়ে বেহুশ অবস্থায় বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে ভর্তি তিনি। উত্তর চকভবানী এলাকার বাসিন্দা ওই শিক্ষক। অন্যান্য দিনের মত শুক্রবার রাতে স্ত্রী তাঁকে দুধের মধ্যে আম খেতে দেন। অভিযোগ, সেই আম দুধের মধ্যে বেশ কয়েকটি ঘুমের ট্যাবলেটও মিশিয়ে দেন। কারণ, পরপুরুষের সঙ্গে স্ত্রী দীর্ঘদিন থেকে পরকীয়া চলছিল।

সম্প্রতি স্বামী তা ধরে ফেলায় তাঁকে এইভাবে স্ত্রী খুনের চেষ্টা করেন বলেও অভিযোগ। অসুস্থ অবস্থায় শিক্ষককে প্রতিবেশীরা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁকে পরীক্ষা করেন। এরপরেই বিষয়টি সামনে আসে যে আম-দুধের মধ্যে মেশানো ছিল ঘুমের ট্যাবলেট। আজ শনিবার অভিযোগ পেয়ে বালুরঘাট থানার পুলিশ শিক্ষকের বাড়ি পৌছানোর আগেই অভিযুক্ত স্ত্রী চম্পট দিয়েছেন বলেও পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

এই ব্যাপারে বালুরঘাট থানার আইসি জয়ন্ত দত্ত জানিয়েছেন, শিক্ষককে দুধের সঙ্গে ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে খুনের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্তও শুরু করেছে। এর পিছনে পরকীয়ার কোন ব্যাপার থাকতে পারে বলে প্রাথমিক তদন্তে অনুমান।