মুম্বই: করোনাকে আটকাতে মার্চ মাসে‌ প্রথমে লকডাউন ২১ দিনের জন্য করা হলেও‌ পরবর্তীকালে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দফায় দফায় এর মেয়াদ বাড়ানো হচ্ছে। লকডাউন এর মেয়াদ বাড়ানোর পাশাপাশি এবার দেখা গেল ঋণ পরিশোধের ক্ষেত্রে মোরাটোরিয়ামের সময় বৃদ্ধি করা হলো। শুক্রবার রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস জানিয়ে দিলেন এই মোরাটোরিয়ামের মেয়াদ আরও তিন মাস বৃদ্ধি করা হচ্ছে।

এদিন রিজার্ভ ব্যাংক রেপো রেট ৪০ বেসিস পয়েন্ট কমানোর পাশাপাশি লকডাউনের সময় আর্থিক চাপের কথা চিন্তা করে ‌ ঋণ পরিশোধের মোরাটরিয়ামের সময় আরও তিন মাস বৃদ্ধি করে দিল। অর্থাৎ আগে যেটা মার্চ থেকে মে করা ছিল সেটা আরও তিন মাস ১ জুন থেকে ৩১ অগস্ট বাড়িয়ে দেওয়া হল।

প্রসঙ্গত,বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস মহামারীর আকার ধারণ করায় এদেশের যাতে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে না পড়ে তারজন্য প্রথমে মার্চ মাসে ২১ দিনের লক ডাইন জারি হয় ৷ তবে তার জেরে রীতিমতো বিপাকে পড়ে জনগণ৷ সেই কথা ভেবে সরকার একের পর এক বেশ কিছু পদক্ষেপ করে। যেমন আর্থিক সংকটে পড়া ঋণ গ্রহীতাদের অসুবিধার কথা মাথায় রেখে রিজার্ভ ব্যাংক মেয়াদি ঋণের উপর ইএমআই দেওয়ার ক্ষেত্রে তিন মাসের মোরাটোরিয়াম ঘোষণা করে৷

রিজার্ভ ব্যাংকের ওই ঘোষণার পর অনেক ঋণগ্রহীতা স্বস্তি পায়। তবে এক্ষেত্রে মনে রাখা দরকার রিজার্ভ ব্যাংক শুধুমাত্র ব্যাংকগুলিকে প্রস্তাব দিয়েছে।এরপর প্রত্যেক ব্যাংক আলাদা ভাবে সিদ্ধান্ত নেবে। এজন্য সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের বোর্ডে বিষয়টিকে অনুমোদন করিয়ে নিতে হবে ৷ তবে আস্তে আস্তে বেশ কিছু ব্যাংক জানাতে শুরু করেছে তারা গ্রাহকদের এই সুবিধা দেবে এবং আগামী তিনটি ইএমআই আপাতত কাটবে না।

তাছাড়া এক্ষেত্রে মনে রাখা দরকার এটা কিন্তু ইএমআই মকুব নয় বরং বলা যেতে পারে তিন মাসের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। মানে তিন মাসের জন্য ইএমআই দিতে হবে না। উল্টে এই জমা স্থগিত রাখা ইএমআই পরে সুদ সহ শোধ দিতেই হবে। তবে সেটা কী ভাবে দিতে হবে সেটা ব্যাংক বা ঋণদাতা ঠিক করবে। বিভিন্ন ব্যাংকের এই পদ্ধতি আলাদাও হতে পারে। উদাহরণ স্বরূপ কেউ পুরো ঋণের মেয়াদ তিন মাস বাড়িয়ে দিতে পারে। আবার কেউ অবশিষ্ট সময়ের ইএমআই-তে ওই তিন মাসের বকেয়া ইএমআই-এর অর্থ সমান ভাগে ভাগ করে দিতে পারে। যার জন্য অনেক আর্থিক পরামর্শদাতার অভিমত , যারা ইএমআই দিতে পারবেন তাদের তা দিয়ে দেওয়াই ভালো।

এদিকে আবার এই মোরাটোরিয়াম এর নাম করে সাইবার ক্রিমিনালরা গ্রাহকদের প্রতারণা করতে শুরু করে। ফলে বিভিন্ন ব্যাংক তাদের গ্রাহকদের এই বিষয়ে সতর্ক করেছে। কারণ বেশ কিছু ব্যাংকের কাছে এমন অভিযোগ আসে । ফলে ব্যাংকের পক্ষ থেকে গ্রাহকদের সতর্ক করা হয়- ইএমআই মোরাটোরিয়াম এর নাম করে যদি কেউ ফোনে যোগাযোগ করে তাহলে তাকে কোনমতেই ওটিপি নাম্বার অথবা পিন নাম্বার ইত্যাদি না দিতে ।