দেরাদুন : চিনা পণ্য বয়কট করার ডাক। রীতিমতো চিন বিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠল হিমাচল প্রদেশের ধরমশালার ম্যাকলেডগঞ্জ। কোনও ভাবেই যাতে বাজারে চিনা পণ্য প্রবেশ করতে না পারে, সেজন্যই এই বিক্ষোভ বলে খর।

শুক্রবার এই বিক্ষোভের নেতৃত্ব দিতে গিয়ে নির্বাসিত তিব্বতিদের প্রেসিডেন্ট গোংপো ধোনধুপ জানান গোটা বিশ্ব জুড়ে ১০ মিলিয়ন মানুষ করোনা আক্রান্ত। ২১৬টি দেশ ক্ষতিগ্রস্ত। লাখে লাখে মানুষ মারা যাচ্ছেন। শুধু মাত্র একটি দেশের উদাসীনতার কারণে। তা হল চিন। তাই চিনা পণ্য বিশ্ব জুড়ে বয়কট করা হোক। তার যথেষ্ট কারণও রয়েছে।

শুক্রবার ম্যাকলডগঞ্জের রাস্তায় চিনা পণ্য জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখায় নির্বাসিত তিব্বতীরা। জ্বালানো হয় চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের কুশপুতুল।

এদিকে, চিনের কার্যকলাপ নিয়ে ভারতকে সতর্ক করল তিব্বত। চিনের ছক সম্পর্কে সচেতন করে তারা। পূর্ব লাদাখে গোটা গালওয়ান ভ্যালি নিজেদের এলাকা বলে দাবি করছে চিন। তা যেন ভারত কোনও ভাবেই মেনে না নেয়।

এভাবে এত বছর বাদে চিন এভাবে এই দাবি করায় চিন্তিত তিব্বতের নির্বাসিত সরকার৷ চিনের আগ্রাসন দেখেই ভারতকে সতর্ক করেন সেন্ট্রাল তিব্বত অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের প্রেসিডেন্ট লবসাং সাংগে৷ তিনি জানিয়েছেন, লাদাখ সীমান্তে চিনের কার্যকলাপ কিন্তু চিনের ‘ফাইভ ফিঙ্গার স্ট্র্যাটেজি’-র অংশ৷ যে স্ট্র্যাটেজি শুরু করেছিলেন পিপলস রিপাবলিক অফ চায়না-র প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মাও সে তুং৷

সাংগের কথায়, ‘যখন চিন তিব্বত দখল করল, মাও সে তুং-সহ অন্যান্য চিনের নেতারা বলেছিলেন, তিব্বত হল হাতের তালু,যা আমাদের দখল করতেই হত৷ এরপর আমরা বাকি পাঁচ আঙুল বাড়াবো৷ প্রথম আঙুলটি হল লাদাখ৷ বাকি ৪টি আঙুল হল নেপাল, ভুটান, সিকিম ও অরুণাচলপ্রদেশ৷’

২০১৭ সালের ডোকলাম স্ট্যান্ড-অফ প্রসঙ্গ টেনে তিনি জানান, লাদাখের এই আগ্রাসনও সেই ফাইভ ফিঙ্গার স্ট্র্যাটেজির-ই অংশ৷ তিব্বতের নেতারা ভারতকে গত ৬০ বছর ধরেই এটাই সতর্ক করে আসছেন৷ নেপাল, ভুটান ও অরুণাচলের উপরেও চাপ রয়েছে৷ ভারত-চিন সীমান্তে চরম সংঘাতে হতাহত বহু ভারতীয় জওয়ান। ২০ জওয়ান শহিদ হন।

আরও জানা যায়, সীমান্তে আহত হয়েছেন ৭৬ জন জওয়ান। ঘটনার পর তাঁদের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে কারও অবস্থাই আশঙ্কাজনক নয় বলে জানা গিয়েছে। তাঁরা দ্রুত কাজে ফিরবেন বলেও জানিয়েছে ভারতীয় সেনা। সোমবার রাতের সংঘর্ষে ২০ জন সেনা জওয়ান শহিদ হন। বেশ কয়েকজন গুরুতর জখম হন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ