স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা চলাকালীন কোনও পরীক্ষার্থীর থেকে মোবাইল পাওয়া গেলে তার রেজিস্ট্রেশন বাতিল করা হবে৷ কোনওদিন সে আর পরীক্ষায় বসতে পারবে না৷ উচ্চ মাধ্যমিক সংসদের সভাপতি মহুয়া দাস শনিবার সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানিয়েছেন৷ প্রশ্নপত্রের খামে থাকবে কম্পিউটার ট্র্যাকিং স্টিটেম৷

মাধ্যমিক পরীক্ষায় মুখ পুড়েছে রাজ্যের শিক্ষা দফতরের৷ সাতটি বিষয়ের মধ্যে ছটি বিষয়ের প্রশ্নপত্রই ফাঁস হয়ে গিয়েছে৷ বিভিন্ন মহলের সমালোচনার মুখে পড়ে এবার উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার নজরদারি আরও আঁটসাঁট করা হচ্ছে৷মহুয়া দাস জানিয়েছেন, স্কুলের প্রধান শিক্ষক ছাড়া কারোর কাছেই মোবাইল ফোন থাকবে না৷ এক চতুর্থাংশ কেন্দ্রে মোবাইল ডিটেকশন থাকবে৷

কোনও পরীক্ষার্থীকেই প্রথম এক ঘন্টায় টয়লেট যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে না৷ এমনকি পরীক্ষা কেন্দ্রের শিক্ষক-শিক্ষিকাও বাইরে যেতে পারবেন না৷প্রতিটি ঘরে তিনজন করে পরিদর্শক থাকবে৷ পরীক্ষা কেন্দ্রে খোলা হবে কন্ট্রোল রুম৷ নিয়ম ঠিকমতো পালন করা হচ্ছে কিনা সেখান থেকে তা নজর রাখা হবে৷এছাড়া সিসিটিভির নজরদারি থাকবে৷

সংসদ সভাপতি জানিয়েছেন, প্রশ্নপত্রের খামে থাকবে কম্পিউটার ট্র্যাকিং স্টিটেম৷তিনি বলেন‘গোপনে প্রশ্ন বের করলে ধরা পড়বে৷ আমাদের কাছে অ্যালার্টও আসবে৷’গত দুবছর ধরেই এই পদ্ধতি উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় চালু রয়েছে৷ ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা৷ চলবে ১৩ মার্চ পর্যন্ত৷