আগরতলা: রাজ্যের করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ে সরকারি উদাসীনতার যে অভিযোগ রোজ সংবাদমাধ্যমে স্থান পাচ্ছে তাকেই মান্যতা দিলেন প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সুদীপ রায় বর্মণ। হেভিওয়েট বিজেপি নেতার অভিযোগ, ত্রিপুরায় করোনা আক্রান্ত রেগীদের মৃত্যু হচ্ছে অবর্ণনীয় পরিবেশে।

করোনা মোকাবিলা নিয়ে সরকারের ভূমিকার কড়া সমালোচনা করেছেন সুদীপবাবু। আগরতলায় সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন, করোনা রোগীদের নিয়ে সরকারের তরফে তথ্য চেপে যাওয়ার প্রবণতা লক্ষ্য করছি।

এই প্রসঙ্গে প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাম না করেই মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সমালোচনা করেন। সুদীপবাবু বলেন, আগে একজনের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে রাজ্যের করোনা সংক্রমণের তথ্য আসত। এখন সেরকম কিছু আসছে না।

ত্রিপুরার করোনা পরিস্থিতি তুলে ধরতে গিয়ে তথ্য পরিসংখ্যান দিয়ে প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এখন মুম্বই ও দিল্লি পুরনিগমের থেকে আগরতলা পুরনিগমে করোনা সংক্রমণ বেশি। দিনের পর দিন ভয়াবহ অবস্থা তৈরি হচ্ছে, অথচ সরকার উদাসীন।

রেগীরা আগরতলার জিবি হাসপাতালে আসতে ভয় পাচ্ছেন বলে অভিযোগ সুদীপ রায় বর্মণের। হাসপাতালের করোনা চিকিৎসা নিয়ে একের পর এক সমালোচনার তীরে সরকারকে বিদ্ধ করেছেন তিনি।

ত্রিপুরার করোনা মোকাবিলা পরিস্থিতি নিয়ে বিরোধী সিপিআইএম ও কংগ্রেস বারবার সরকারের সমালোচনায় সরব। বিরোধী নেতা তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার আগেই সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন। মুখ খুলেছিলেন সুদীপবাবুও। তবে শুক্রবার যেভাবে তিনি সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন তা নজিরবিহীন।

টানা দু’দশকের বাম শাসনের পর গত বিধানসভা নির্বাচনে সরকারের পরিবর্তন হয়। ক্ষমতায় আসে বিজেপি আইপিএফটি জোট। সরকারের প্রথম দিকের চোদ্দ মাস স্বাস্থ্যমন্ত্রী ছিলেন রাজ্যে পরিবর্তনের অন্যতম কাণ্ডারী সুদীপবাবু। পরে আইন শৃঙ্খলার অবনতি নিয়ে সরকারের সমালোচনা করায় তাঁর মন্ত্রীত্ব চলে যায়।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।