ঢাকা: জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট (জিয়া অনাথ আশ্রম) দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি পাঁচ বছরের জেল হয় বাংলাদেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার৷ খবর ছড়াতেই একই সঙ্গে ছড়িয়ে পড়ে প্রবল উত্তেজনা৷ পরিস্থিতি সামাল দিতে সে সময় প্রচুর নিরাপত্তা রক্ষীও মোতায়েন করা হয়৷ তবে এবার চার মাসের জন্য জামিন পেলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী৷

বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, শাস্তির নথিপত্র নিম্ন আদালত থেকে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চে গিয়ে পৌঁছানোর পর বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের বেঞ্চ খালেদা জিয়ার জামিন মঞ্জুর করেন। তবে আদালতের পক্ষ থেকে একথা জানানো হয়েছে, খালেদা জিয়ার শারীরিক সমস্যার কথা বিবেচনা করে তাকে চার মাসের জন্যে অন্তর্বর্তী জামিন দেওয়া হল।

পড়ুন: EXCLUSIVE লন্ডনে নিদ্রাহীন খালেদাপুত্র ফোনেই জানলেন মায়ের জেল সংবাদ

প্রসঙ্গত, গত ২০ ফেব্রুয়ারি সাজার রায় ঘোষণার পর জামিন চেয়ে আপিল করেন খালেদা জিয়া। ১২ মার্চ, সোমবার দুপুরে তাঁর জামিন মঞ্জুর হয়৷

টানা ৩৬ বছরের রাজনৈতিক জীবনে খালেদা জিয়া এর আগে একবার কারাগারে গিয়েছিলেন। ২০০৭ সালের ৩ সেপ্টেম্বর সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তখন তাকে জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় স্পিকারের বাসভবনকে সাবজেল বানিয়ে সেখানে রাখা হয়েছিল। ২০০৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর উচ্চ আদালতের এক আদেশে খালেদা জিয়া মুক্তি পান।