নয়াদিল্লি: ভারতীয় সেনাদের নিম্নমানের খাবার সরবরাহ করার অভিযোগ তুলে একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন প্রাক্তন সেনা জওয়ান। মুহূর্তেই তা ভাইরাল হয়ে উঠে এসেছিল সংবাদ শিরোনামে। তিনিই সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে লড়াই করবেন নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে।

ক্ষমতায় এসে কোনও প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে পারেননি মোদী। এমনই অভিযোগ করেছেন প্রাক্তন সেনা জওয়ান তেজ বাহাদুর যাদব। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে নরেন্দ্র মোদীকে তিনি একটা প্রশ্ন করতে চান। তিনি বলেছেন, “মোদীর কাছে আমার প্রশ্ন, আপনি যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন সেগুলির কোনটা আপনি রাখতে পেরেছেন?”

২০১৭ সালে তেজ বাহাদুরের পোস্ট করা ভিডিও থেকে প্রশ্ন উঠেছিল দেশের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিদের প্রতিকূল অবস্থার কথা। সেই পোস্টের জন্য হারাতে হয়েছিল জওয়ানের চাকরি। এবার সেই সেনাবাহিনীর প্রতি বর্তমান সরকারের ব্যর্থতার বিষয়গুলি তুলে ধরতেই বারাণসী কেন্দ্র থেকে ভোটে দাঁড়াচ্ছেন তিনি। ওই কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দী মোদীর বরুদ্ধে তাঁর অভিযোগ, “প্রধানমন্ত্রী মোদী শহিদদের প্যারা মিলিটারির সম্মান দেবেন বলেছিলেন, পেনশন দেবেন বলেছিলেন। কিন্তু তা বাস্তবায়িত হয়নি।”

জেতার ভাবনা নেই তাঁর, তাই হারার চিন্তাও করছেন না তেজ বাহাদুর যাদব। প্রার্থী হয়ে ট্যুইটারে তিনি লিখেছেন, “এই প্রাক্তন জওয়ান হারতেও চান না, জিততেও চান না। ভারতীয় আধা সামরিক বাহিনীর প্রতি সরকারের ব্যর্থতার বিষয়গুলো তুলে ধরতেই তাঁর নির্বাচনে লড়তে আসা।” প্রতিশ্রুতি পূরণে ব্যর্থ মদীর লক্ষ্যে ছুড়ে দেওয়া প্রশ্নের উত্তর খোঁজাটাই এখন তাঁর মুখ্য উদ্দেশ্য। তিনি বলেছেন, “মোদী আমাদের উত্তর দিক। এটা একটা সাম্য লড়াই। একদিকে আসল চৌকিদার আর অপরদিকে নকল চৌকিদার।”

খুব শীঘ্রই বারানসীর প্রাক্তন চাকুরীজীবি ও কৃষকদের নিয়ে প্রচার শুরু করবেন তেজ বাহাদুর। প্রচার অবশ্যই মোদীর বিরুদ্ধে। তিনি বলেছেন, তারা মানুষের জন্য কাজ করার লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামবেন। তেজ বাহাদুর দাবি করেছেন, বহু দলই তাঁকে নিজেদের দলে আসার জন্য প্রস্তাব দিয়েছে।

কিন্তু তিনি স্বতন্ত্রভাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলেই সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। কারণ তিনি বর্তমান সরকারের দোষ–ত্রুটি গুলো জনতার সামনে আনতে চান। কোন দলের সঙ্গে মিলে কাজ করলে তা সম্ভব হবে না। নির্বাচনে লড়ার বিষয়টি ঘোষণা করে প্রাক্তন সেনা জওয়ান জানান, তিনি নির্বাচনে লড়তে এসেছেন, সেনাবাহিনীতে প্রতিনিয়ত যে দুর্নীতিগুলো হয়ে চলেছে সেগুলি তুলে ধরার লক্ষ্য নিয়ে।