ছবি সূত্র: ইন্টারনেট

স্টাফ রিপোর্টার, বোলপুর: ফুটপাত জবরদখল মুক্ত করতে সক্রিয় হল বোলপুর পুরসভা ও প্রশাসন৷ বোলপুর শহরের নিত্যদিনের সমস্যা যানজট৷ আর এই যানজটের অন্যতম কারণ হল অবৈধভাবে রাস্তার দু’ধার দখল করে রয়েছেন ব্যবসায়ীরা৷ বারবার প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও চলছে দেদার ব্যবসা৷

মঙ্গলবার বেলা দশটা থেকে শুরু হয় এই ফুটপাত রক্ষার অভিযান৷ এদিন দোকান উচ্ছেদ না করা হলেও ব্যবসায়ীদের রাস্তার দু’ধার থেকে দোকান সরিয়ে নেওয়ার জন্য বলা হয়৷ অভিযানে ছিলেন বোলপুর মহকুমাশাসক, বোলপুর পুরসভার পুরপিতা সুশান্ত ভকত ও বোলপুর থানার পুলিশ৷

পুরপ্রধান সুশান্ত ভকত জানান, গত কয়েক দিন ধরে মাইকিং করে ফুটপাত উচ্ছেদের অভিযান সম্পর্কে আগাম সতর্কতা জারি করা হয়৷ কিন্তু সেই সর্তকতাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ব্যবসায়ীরা ফুটপাত দখল করে রমরমিয়ে ব্যবসা চালাচ্ছেন৷ মঙ্গলবার পুলিশের সহায়তা নিয়ে ফুটপাত দখল তুলতে অভিযানে নামে পুরসভা৷

পাশাপাশি ফুটপাত ব্যবসায়ীদের পুনর্বাসনের কথাও ভাবছে বোলপুর পুরসভা৷ তবে বোলপুর ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক সুনীল সিং জানান, ‘‘পুরসভা ও প্রশাসনের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাচ্ছি। কিন্তু তার সঙ্গে ফুটপাত ব্যবসায়ীদের কথা ভাবতে হবে প্রশাসনকে৷ কারণ ফুটপাত ব্যবসায়ীদের বড় ধরনের পুঁজি নেই৷ তাঁরা অন্য কোথাও জায়গা কিনে ব্যবসা করতেও পারবেন না৷ বোলপুর শহরে শান্তিনিকেতন রোড থেকে স্টেশন রোডের মধ্যে প্রায় ২০০০ ফুটপাত ব্যবসায়ী রয়েছে৷ সকলের কথাই চিন্তা করতে হবে প্রশাসনকে৷’’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I