এক যুগান্তকারী ঘোষণায় শূন্য টাকায় ফোন দেবে বলে ঘোষণা করেছেন মুকেশ অম্বানি। তাঁর সংস্থা রিলায়েন্স জিও-র ওই ফোনের জন্য আদতে কোনও টাকা দিতে হবে না বলেই জানিয়েছেন তিনি। শুধু ডিপোজিট করতে হবে ১৫০০ টাকা। সস্তায় 4G ডেটা দিয়ে আলোড়ন ফেলে দেওয়ার পর এবার জিও-র এই নয়া স্মার্টফোন নিয়ে দেশ জুড়ে তৈরি হয়েছে ব্যাপক উত্তেজনা। কোথায় পাওয়া যাবে? কেমন হবে সেই ফোন, জানতে আগ্রহী অনেকেই। জিও-র সেই ফোনের সম্পর্কে সব তথ্য জেনে নিন:

কবে থেকে পাওয়া যাবে এই ফোন:

চলতি বছরের ১৫ অগাস্ট থেকে শুরু হবে এই ফোনের বেটা ভার্সান। অর্থাৎ পরীক্ষামূলকভাবে চালু হবে এই ফোন। ২৪ অগাস্ট থেকে শুরু হবে প্রি-বুকিং।

কোথা থেকে বুক করবেন:

MyJio অ্যাপ ব্যবহার করে কিংবা Jio অফ;আইন স্টোর থেকে এই ফোন বুক করা যাবে। যদি আপনার বুকিং সফল হয়, তাহলে সেপ্টেম্বরে হাতে আসবে সেই ফোন। প্রত্যেক সপ্তাহে ৫০ লক্ষ ফোন পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন মুকেশ অম্বানি।

জিও ফোনের প্ল্যান:

এই ফোনে দুটি প্রিপেড প্ল্যান থাকবে। দুটিরই ভ্যালিডিটি ১ মাস। এতে থাকবে আনলিমিটেড 4G ডেটা, আনলিমিটেড ফোন কল ও এসএমএসের সুযোগ। তবে একটি প্ল্যান ১৫৩ টাকার ও অপরটি ৩০৯ টাকার। সবকিছুই একই রকম হলেও ৩০৯ -এর প্ল্যানের ক্ষেত্রে গ্রাহকেরা টিভির সঙ্গে যুক্ত করতে পারবেন ওই ফোন। এর ফলে যে কোনও টিভিকে ফোনের ‘মিরর’ হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। এর ফলে জিও স্ট্রিমি সার্ভিস ব্যবহার করা যাবে।

যারা মাসের হিসেবে প্ল্যান নিতে চান না তাঁরা ছোট ছোট প্ল্যানও নিতে পারবেন। যেমন ২৪ টাকার দু’দিনের প্যাক অথবা ৫৪ টাকায় এক সপ্তাহ।

ফোনের দাম:

অম্বানিরা এই ফোনকে বলছেন ‘ইন্ডিয়া কা স্মার্টফোন। তবে ফ্রি হলেও পুরোপুরি ফ্রি নয় এই ফোন। অর্ডার দেওয়ার সময় আপনাকে ১৫০০ টাকা দিতে হবে তবে এই টাকা ফেরৎযোগ্য। ফোন কেনার তিন বছর পর ওই ফোন ফেরৎ দিয়ে টাকাটি হাতে পেয়ে যেতে পারেন।

কি কি থাকছে এই ফোনে:

এই ফোনে সব ধরনের জিও অ্যাপস থাকছেই। অর্থাৎ, জিও মিউজিক, জিও সিনেমা ইত্যাদি। এছাড়া থাকবে জিও-র স্ট্রিমিং সার্ভিস। এর মাধ্যমে টিভিতে অনায়াসে দেখা যাবে জিও সিনেমা। থাকছে ফেসবুক। তবে হোয়াটসঅ্যাপ আপাতত সাপোর্ট করবে না এই ফোন। ফোনটি ২২টো ভারতীয় ভাষা সাপোর্ট করবে। ফোন, এমএমএস সবই হবে। হবে ওয়েব সার্চ, থাকবে ভয়েস কমান্ড। আর একটি বিশেষ ফিচার হল, NFC সাপোর্ট। এতে UPI-এর মাধ্যমে পেমেন্ট করা যাবে। ডেবিট কার্ডের প্রয়োজন হবে না। অ্যাকাউন্ট নম্বর দিলেই হবে। এতে একটি প্যানিক বাটনও থাকবে।

এছাড়া এই ফোনের স্ক্রিন হবে ২.৪ ইঞ্চি ও রঙিন। অন্যান্য ফোনের মতই থাকবে এফএম রেডিও, ব্লুটুথ, ডুয়াল-সিম সাপোর্ট, ক্যামেরা ইত্যাদি।