চেন্নাই: গডসে নিয়ে মন্তব্যের জন্য সম্প্রতি শিরোনামে আসেন রাজনীতিক তথা অভিনেতা কমল হাসান। হিন্দু সন্ত্রাস নিয়ে মন্তব্য করেছিলেন তিনি। এবার তিনি বললেন, ‘প্রত্যেক ধর্মের নিজস্ব সন্ত্রাসবাদী রয়েছে।’ আগের মন্তব্য নিয়ে কার্যত নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন কমল হাসন।

গডসে নিয়ে মন্তব্যের পর তাঁর দিকে জুতো ছুড়ে হামলার চেষ্টাও হয়েছে। কিন্তু এবার ‘মাক্কাল নিধি মইয়াম’ দলের প্রতিষ্ঠাতা বলেন, প্রতিটি ধর্মেই সন্ত্রাসবাদী রয়েছে। কমলের কথায়, গ্রেফতারির ভয় তিনি পান না। তাঁকে গ্রেফতার করতেই পারে। এতে অশান্তি বরং আরও বাড়বে। তবে এটা হুমকি নয়, কারণ তিনি শান্তির পক্ষে।

কমলের কথায়, ‘‘এ কথা আমি যে প্রথম বার বলছি, এমনটা নয়। আসলে সন্ত্রাসবাদ তো কোনও ধর্মের সঙ্গে সংযুক্ত নয়। যে কোনও ধর্মেই সন্ত্রাসী থাকতে পারে। হিন্দুরা যে খুব পবিত্র, এ কথা জোর দিয়ে বলতে পারি না।’’

এর আগে কমল হাসান বলেছিলেন, ‘স্বাধীন ভারতের প্রথম সন্ত্রাসবাদী একজন হিন্দু৷’ কমল হাসানের মন্তব্যে তৈরি হয় বিতর্ক৷ প্রতিবাদে সরব হয় গেরুয়া শিবির৷

হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত করেছেন এই অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে৷ দিল্লির পাতিয়ালা হাউস কোর্টে মাক্কাল নিধি মইয়াম দলের নেতার বিরুদ্ধে ফৌজদারি ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয়।

গডসে মন্তব্য নিয়ে কমল নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে জানান, তাঁর মন্তব্যের অর্থ ছিল সংহতি। তিনি মুসলিম, হিন্দু, খ্রিস্টান নির্বিশেষে সকলের কাছে পৌঁছতে চান। কিন্তু হাসনের এই মন্তব্যের তীব্র আপত্তি জানিয়েছে বিজেপি। তাঁকে পাঁচ দিনের জন্য নিষিদ্ধ করার দাবিতে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে তারা।

১৯ মে তামিলনাড়ুর চারটি বিধানসভায় উপনির্বাচন। এর মধ্যে আরাভাকুরিচি এবং তিরুপ্পারানকুন্দ্রামও রয়েছে। ২০১৮ সালে মাক্কাল নিধি মইয়াম নামে যে দল গড়েছেন কমল হাসন, চলতি লোকসভা নির্বাচনে এই প্রথম তাঁর দল লড়ছে।