মানব গুহ, কলকাতা: সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন একটা পোস্ট খুবই ভাইরাল। ছড়িয়ে পড়েছে মানুষের মোবাইলে৷ হাসির খোরাক একটাই। সেটা, মেসির পেনাল্টি মিস। উত্তমকুমারের ধন্যি মেয়ে থেকে মারাদোনার হ্যান্ড অফ গড, মেসিকে নিয়ে ট্রোলের কিছুই বাকি নেই। বাদ গেল না কলকাতা পুলিশও৷ নিজেদের প্রচারে মেসির পেনাল্টি মিসকে কাজে লাগাল তারা৷ আর এখানেই শুরু হয়েছে বিতর্ক।

‘সব পেনাল্টি মিস হয় না’৷ ঠিক এই ভাষাতেই কলকাতা ট্রাফিক পুলিশ বিজ্ঞাপন দিল নিজেদের৷ অর্থাত মেসির পেনাল্টি মিস হতেই পারে, কিন্তু রাস্তায় আইনভঙ্গকারীরা কলকাতা ট্রাফিক পুলিশের পেনাল্টি থেকে রেহাই পাবেন না।

একদিকে মেসির পেনাল্টি মিসের ছবি, অন্যদিকে বিনা হেলমেটের বাইক আরোহীকে পুলিশের ফাইন করার ছবি জুড়ে, ফেসবুক পোস্ট দিয়েছে কলকাতা পুলিশ। পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার আবার সেই ছবি দিয়ে টুইটও করেছেন।

বিশ্বকাপ ফুটবল চলার সময় মেসির ছবি দিয়ে কলকাতা পুলিশের এই পোস্ট শুধুমাত্র সচেতনতা আরও বাড়াতে সেটা পরিস্কার। তবে, কলকাতা পুলিশ বেশ মজা করে এই পোস্ট করলেও বাংলার মেসি ভক্তরা কিন্তু বেজায় চটেছেন।

একদিকে প্রথম ম্যাচে মেসির পেনাল্টি নষ্ট। গ্রুপের দূর্বল দল আইসল্যান্ডের সঙ্গে ড্র। পরের ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার কাছে পরিস্কার তিন গোলে হার। বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডেই বিদায় নেবার ভ্রুকুটি। এমনিতেই মেজাজ ভালো নেই আর্জেন্টিনা ভক্তদের। তার ওপর, কলকাতা পুলিশ তাদের ‘ফুটবল ভগবান’ মেসিকে নিয়ে এই পোস্ট করায় বেজায় ক্ষুব্ধ তারা।

রীতিমত ভালোবাসার ওপর হাত রেখে দিয়েছে কলকাতা পুলিশ। মন খারাপের উপর কলকাতা পুলিশের এই সচেতনতা পোস্টে বেশ চটেছেন আর্জেন্টিনা ও মেসি ভক্তরা। তারা এটাও বলছেন, ‘এটা কলকাতা পুলিশের ফালতু পোস্ট। কত বিনা হেলমেটের বাইক আরোহী পুলিশের সামনে দিয়ে বেরিয়ে যায়, পুলিশ কিছুই করতে পারে না’৷ মেসিকে নিয়ে এই ধরণের পোস্টের যৌক্তিকতা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন মেসি ফ্যানরা।

তবে, কলকাতা পুলিশের তরফ থেকে পরিস্কার জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, সাধারণ মানুষকে সচেতন করতেই তাদের এই পোস্ট। কাউকে কোনরকম আঘাত দেওয়া এই পোস্টের লক্ষ্য নয়। হেলমেট পরে বাইক চালান, এই অনুরোধই করা হচ্ছে ট্রাফিক পুলিশের তরফ থেকে।

এমনিতেই পুলিশের সমালোচনায় ভর্তি থাকে সোস্যাল মিডিয়া। এরপর মেসির পেনাল্টি মিস নিয়ে সচেতনতার কাজ করায় পুলিশের বিরুদ্ধেই ক্ষুব্ধ মেসি ভক্তরা। তাদের ‘ভগবান’কে সোস্যাল মিডিয়ায় কটাক্ষ করায়, কলকাতা পুলিশকেও যে মেসিভক্তরা সহজে রেহাই দেবে না, এটা কিন্তু পরিস্কার।