লন্ডন: বার্সেলোনার কাছে হেরে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে বিদায়ের পর প্রিমিয়র লিগে লজ্জার হার ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের। রবিবার অ্যাওয়ে ম্যাচে এভার্টনের কাছে ০-৪ গোলে বিধ্বস্ত হল ওলে গানার সোল্কজায়েরের ছেলেরা। ফলে চার ম্যাচ বাকি থাকতে রেড ডেভিলসদের লিগে প্রথম চারে শেষ করার বিষয়টি বড়সড় প্রশ্নচিহ্নের মুখে।

ম্যাচের ৮৫ মিনিট পর্যন্ত এদিন বিপক্ষের গোল লক্ষ্য করে শট নিতে ব্যর্থ ম্যান ইউ ফুটবলাররা। ম্যাচে এভার্টনের প্রাধান্য বোঝাতে এই পরিসংখ্যানটুকুই পর্যাপ্ত। ম্যাচের ১২ মিনিটে থ্রো-ইনের সুযোগ কাজে লাগিয়ে রিচার্লিসনের অ্যাক্রোব্যাটিক ভলি দি গিয়াকে পরাস্ত করে জড়িয়ে যায় জালে। সেইসঙ্গে ম্যান ইউ রক্ষণে ভাঙনের সূচনা হয়। এরপর ২৮ মিনিটে ২৫ গজ দূর থেকে সিগার্ডসনের গোলমুখী শট ডানদিকে ঝাঁপিয়ে পড়েও নাগাল পেতে ব্যর্থ হন স্প্যানিশ দি গিয়া।

প্রথমার্ধে ০-২ গোলে পিছিয়ে পড়ে রেড ডেভিলসরা। দ্বিতীয়ার্ধে জোড়া পরিবর্তন এনে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা করেন ম্যান ইউ কোচ সোল্কজায়ের। এরপর ম্যাচে কিছুটা ছন্দ ফিরে পেলেও ডেডলক খুলতে ব্যর্থ হয় ম্যান ইউ। বরং দ্বিতীয়ার্ধের ১১ মিনিটে ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় নীল জার্সিধারীরা। সিগার্ডসনের কর্নার ম্যান ইউ গোলরক্ষক আংশিক প্রতিহত করলে সুযোগ কাজে লাগিয়ে ফিরতি বল তিনি কাঠিতে রাখেন ডিগনে।

এর ঠিক আট মিনিট বাদে ইউনাইটেডের কফিনে শেষ পেরেকটি পোঁতেন আর্সেনালের প্রাক্তনী থিও ওয়ালকট। চতুর্থ গোলের পিছনেও অবদান সেই সিগার্ডসনের। তাঁরই বাড়ানো থ্রু বল ধরে ঠান্ডা মাথায় তা জালে রাখেন সুপার সাব ওয়ালকট। চার গোলে চূর্ণ হয় ম্যান ইউ। একইসঙ্গে প্রথম চারে যাওয়ার সুযোগ হাতছাড়া করায় আগামী মরশুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলা নিয়ে চরম অনিশ্চয়তা ম্যান ইউয়ের অন্দরে। ৩৪ ম্যাচে ৬৪ পয়েন্ট নিয়ে এই মুহূর্তে ষষ্ঠস্থানে তারা। ক্রিস্টাল প্যালেসের ২-৩ গোলে হেরেও ২ পয়েন্ট বেশি নিয়ে চতুর্থস্থানে রইল আর্সেনাল। সমসংখ্যক ম্যাচে সমান পয়েন্ট নিয়েও গোলপার্থক্যে পঞ্চমস্থানে চেলসি।

অন্যদিকে ম্যান সিটি বনাম লিভারপুলের শীর্ষে ওঠার ‘র‍্যাট রেস’ চলছেই। শনিবার টটেনহ্যামকে হারিয়ে স্কাই ব্লুজরা শীর্ষে গেলেও কার্ডিফ সিটিকে ২-০ গোলে হারিয়ে রবিবার ফের লিগের মগডালে রেডস’রা। অ্যাওয়ে ম্যাচে এদিন লিভারপুলের জোড়া গোলই আসে ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে।

৫৭ মিনিটে জর্জিনিয়োর গোলে ম্যাচে এগিয়ে যায় জুর্গেন ক্লপের ছেলেরা। ৮১ মিনিটে স্পটকিক থেকে গোল করে ব্যবধান বাড়ান মিলনার। ৩৫ ম্যাচে ৮৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে লিভারপুল। এক ম্যাচ কম খেলে ২ পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয়স্থানে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ম্যান সিটি।