উত্তরপ্রদেশ: বিতর্কিত মন্তব্য করে বারবারই শিরোনামে উঠে আসেন বিজেপির এই বিধায়ক৷ সম্প্রতি যেমনটা শোনা গিয়েছে উত্তরপ্রদেশের বইরিয়ার বিধায়ক সুরেন্দ্রনারায়ণ সিংয়ের মুখে৷ উন্নাওয়ে গণধর্ষণের ঘটনা প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে এই বিধায়ক বলেন, ভগবান রামও যদি আসেন তবুও এই ধরনের ঘটনা আটকানো কোনওভাবে সম্ভব নয়৷

সুরেন্দ্রনারায়ণ সিংয়ের কথায়, ‘‘আমি পূর্ণ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারি ভগবান রামও যদি আসেন তবু ধর্ষণের মত ঘটনা রোখা সম্ভব নয়৷ এটা একটা স্বাভাবিক দূষণ৷ যা থেকে কেউ নিজেকে সরিয়ে রাখতে পারবে না৷ তাই প্রতিটা মানুষের কর্তব্য অন্যদেরও নিজের পরিবারের সদস্যর মতো করে ভাবা৷ নিজের বোনের মতো৷ মূল্যবোধ দিয়ে এসব ঘটনা আটকানো সম্ভব৷ কোনও সংবিধান দিয়ে নয়৷’’

আরও পড়ুন:মোদীর জনসভায় ব্রাত্য কালো কাপড়

এখানেই থামেননি যোগীরাজ্যের এই বিজেপি বিধায়ক৷ তিনি বলেন, ভয়ঙ্কর অপরাধীরা তো এনকাউন্টারে মারা যায়৷ কিন্তু ধর্ষকদের সঙ্গে তেমনটা হয় না৷ তারা শুধু জেলে যায়৷ আমাদের কর্তব্য আমাদের বাচ্চাদের যেন নৈতিকতার পাঠ পড়াই৷

সুরেন্দ্রনারায়ণের বিতর্কিত মন্তব্য অবশ্য এই প্রথমবার নয়৷ এরআগে এই বিজেপি বিধায়কই বলেছিলেন, সরকারি কর্মচারিদের থেকে দেহ ব্যবসায়ীরা ঢের ভালো৷ পাশাপাশি তিনি ধর্ষণের মতো ঘৃণ্য ঘটনার জন্য দায়ী করেছিলেন বাবা-মা ও স্মার্ট ফোনকে৷ উন্নাও গণধর্ষণের ঘটনায় বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সিং সেঙ্গারের নাম জড়ালে সেখানেও নিজের ‘বাক পটুত্ব’ দেখিয়েছিলেন সুরেন্দ্রনারায়ণ৷

আরও পড়ুন: আলিয়ার জন্য পরিচালকের সঙ্গে লড়াইয়ের ময়দানে রণবীর

তিনি বলেছিলেন, ‘‘কেউ কখনও তিন সন্তানের মাকে ধর্ষণ করতে পারে না৷ আমি সাইকোলজিক্যাল পয়েন্ট থেকেই এই কথা বলছি৷ এটা কখনও সম্ভব নয়৷ কুলদীপ সিং সেঙ্গারকে ফাঁসানো হচ্ছে৷’’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।