নয়াদিল্লি : ফিরে আসছে পুরোনো নিয়ম। লকডাউন উঠে গিয়ে দেশে চালু হয়েছে আনলক পর্যায়। এই পরিস্থিতিতে কর্মী প্রভিডেন্ট ফান্ড বা ইপিএফে নিয়মের বদল হল। লক়ডাউন শুরুর দিকে যে পরিমাণ টাকা কাটা হত পিএফের জন্য, অগাষ্ট থেকে সেই টাকাই কাটা হবে বলে জানিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র। অর্থাৎ এবার থেকে কিছুটা হলেও বেতন কম পাবেন কর্মীরা।

মে মাসে কেন্দ্র জানায় কোনও কর্মীর বেতন থেকে যে পরিমাণ টাকা কাটা হত প্রভিডেন্ট ফান্ডের জন্য, আগামী তিন মাস অর্থাৎ তা কম কাটা হবে। ফলে হাতে যে পরিমাণ বেতন পান বেসরকারি কর্মীরা, এবার তিন মাস একটু বেশি পাবেন।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ ঘোষণা করেন বেসরকারি ক্ষেত্রে ইপিএফে ১২ শতাংশের বদলে ১০ শতাংশ করে কাটা হবে। এতে সরকারের পক্ষ থেকে ১০ শতাংশ ও কোম্পানিকে ১০ শতাংশ অর্থ দিতে হবে। ফলে কিছুটা হলেও বোঝা কমবে কেন্দ্রের কোষাগারের। আগামী তিন মাস ইপিএফ কম জমা দেওয়ার সুবাদে তাদের কাছে ৬৭৫০ কোটি টাকার নগদ হাতে থাকবে। তবে সরকারি ক্ষেত্রে ১২ শতাংশই পিএফ কাটা হবে বলে জানিয়ে ছিলেন সীতারমণ।

তবে সেই নিয়ম বন্ধ হয়ে এবার পুরোনো পদ্ধতিতেই ফিরে যাচ্ছে কেন্দ্র। অগাষ্ট মাস থেকেই চালু হয়েছে সেই নিয়ম। মে মাসের আগে যে হিসেবে পিএফে টাকা কাটা হত, সেই হিসেবেই এবার টাকা কাটা হবে। ১২ শতাংশ হারেই টাকা কাটা হবে প্রভিডেন্টের জন্য।

এর আগে জানা গিয়েছিল এপ্রিল থেকে জুলাই গত চার মাসে প্রায় ৩০,০০০ কোটি টাকা ৮০ লক্ষ গ্রাহক তুলে নিয়েছে এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ড ফান্ড অর্গানাইজেশন ( ইপিএফও) থেকে। ছয় কোটি কর্মী এবং তাদের মালিকের দেওয়া অর্থে ইপিএফও ১০ লক্ষ কোটি টাকার তহবিল সামলাচ্ছে।

এই বছর এপ্রিল থেকে জুলাই মাসের তৃতীয় সপ্তাহে যে পরিমাণ টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে তা অন্য বছরের এই সময় থেকে অনেক বেশি। অতি মহামারীর কারণে চাকরি হারানো, বেতন কাটা এবং চিকিৎসা খরচের জন্য এমনটা হয়েছে বলে ব্যাখ্যায় বলা হয়েছে।

ইপিএফও জানিয়েছে, ৮০০০ কোটি টাকা তুলে নিয়েছে ৩০ লক্ষ গ্রাহক ‘কোভিড উইথড্র’ জনিত কারণে। বাকি ২২,০০০ কোটি টাকা সাধারণভাবে তুলে নিয়েছে ৫০ লক্ষ সদস্য মূলত চিকিৎসার কারণে।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা