স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: দীর্ঘদিন ধরে চলা ইংরেজবাজার পৌরসভার অচলাবস্থা কাটাতে এবার নয়া উদ্যোগ নিল পুর কর্তৃপক্ষ। জানা গিয়েছে, জেলার এই পৌরসভার অচল অবস্থা কাটাতে নতুন করে গঠন করা হয়েছে একটি মনিটরিং কমিটি। শুধু তাই নয় আরও জানা গিয়েছে, এই কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে তৃণমূলের জেলা সভানেত্রী মৌসম নূরকে।

এদিকে পৌরসভার নতুন কমিটি গঠন করা নিয়ে প্রকাশ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে জেলা তৃণমূলের মধ্যে গোষ্ঠী কোন্দল। এই কমিটি তৈরি করা নিয়ে তৃণমূল কাউন্সিলর বরুণ সরদার অভিযোগ করে বলেন এই কমিটি সম্পূর্ণভাবে লোকদেখাতে তৈরি করা হয়েছে।

ইংলিশবাজার পৌরসভার আরেক কাউন্সিলর তথা প্রাক্তন চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরীকে এই বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি বলেন, ‘এই কমিটিতে আমাকেও রাখা হয়েছে’। কিন্তু তিনি এই কমিটিতে থাকবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, ইংলিশ বাজারের বর্তমান পৌরপ্রধান পাহাড়প্রমাণ দুর্নীতি করেছেন। শুধু তাই নয় সোমবারের ওই বৈঠকে তিনি পৌরপ্রধানের বিরুদ্ধে সঠিক তদন্তের দাবী জানিয়েছেন। প্রাক্তন চেয়ারম্যান বলেন, ‘পুরসভায় গণতন্ত্র ধর্ষিত হয়েছে তার আমলে’।

এদিকে পুরসভায় স্বচ্ছতা আনতে রাজ্য নেতৃত্বের নির্দেশে এই কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে দাবী করেছেন তৃণমূল সভানেত্রী মৌসম নুর। যদিও কমিটি গঠনের পেছনে স্বচ্ছতা নিয়ে কোনও প্রশ্ন নেই বলে মন্তব্য পৌরসভার চেয়ারম্যান নীহাররঞ্জন ঘোষের।

এদিকে শুধু নিজেদের দলের মধ্যেই নয়, তৃণমূলের এই মনিটরিং কমিটি গঠন করা নিয়ে তীব্র কটাক্ষ করেছেন জেলা বিজেপির সহ-সভাপতি অজয় গাঙ্গুলী। তিনি বলেন, নিজেদের গোষ্ঠী কোন্দলকে ধামাচাপা দিতে এবং পুরসভার দুর্নীতি ঢাকতে এই কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিজেপি সাধারণ মানুষকে সাথে নিয়ে পুরসভার বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামবে বলে একথা জানান তিনি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।