লন্ডন: মাত্র দু’দিনেই ভারতের মাটিতে তাদের প্রথম পিঙ্ক বল টেস্টে আত্মসমর্পণ করেছে ইংল্যান্ড৷ জো রুটদের এই হারে শেষ হয়ে গিয়েছে ইংল্যান্ড টেস্ট বিশ্বচ্যাম্পিয়নের দৌড়৷ হারের পর ব্যাঙ্গ করে রুটদের সাবাশি দিলেন ইংল্যান্ড মহিলা দলের ক্রিকেটার আলেকজান্দ্রিয়া হার্টলে৷ আর এতেই ভষ্মে ঘি ঢালার মতো ক্ষোভে ফেটে পড়লেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক রুট৷

বৃহস্পিতবার মোতেরায় ১০ উইকেটে ভারতের কাছে পিঙ্ক বল টেস্টে হেরেছে ইংল্যান্ড৷ মাত্র দু’দিনের কম সময়ে সিরিজের তৃতীয় টেস্টে ভারতের কাছে হার স্বীকার করেছে রুট অ্যান্ড কোং৷ তারপরেই দেশের প্রাক্তন ক্রিকেটাররা একহাত নিয়েছেন রুটদের। পিছিয়ে নেয় মহিলা দলের ক্রিকেটাররাও৷ ইংল্যান্ড মহিলা ক্রিকেটার হার্টলে চরম অপমান করে ইংল্যান্ডের পুরুষ দলকে। যা মোটেই ভালোভাবে নেয়নি ইংল্যান্ড ক্যাপ্টেন রুট৷

ইংল্যান্ডের মহিলা ক্রিকেট দলের সদস্য হার্টলে আমদাবাদে ভারতের বিরুদ্ধে পিঙ্ক বল টেস্টে দু’দিনের মধ্যে হেরে যাওয়ার পর কৌতুক করে ধন্যবাদ দিয়ে দেন পুরুষ দলকে। মাত্র দু’দিনেই খেলা শেষ করে দেওয়া মহিলা ক্রিকেট দলের খেলা সকলে উপভোগ করতে পারবে বলে মন্তব্য করেন হার্টলে। যা ভালোভাবে নেননি ইংল্যান্ডের পুরুষ ক্রিকেটাররা। হার্টলে টুইটার লেখেন, ‘আজ রাতেই মহিলা ক্রিকেট দল নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে খেলতে নামছে। দারুণ, ইংল্যান্ড পুরুষ ক্রিকেটাররা এর ঠিক আগেই ম্যাচ শেষ করে ফেলেছে৷’ একই সঙ্গে হাততালি দেওয়ার ইমোজি পোস্ট করেন তিনি৷

প্রাক্তনদের সমালোচনার পাশাপাশি মহিলা ক্রিকট দলের সদস্যের এই অপমান মেনে নিতে পারেননি রুট ও তাঁর সতীর্থরা৷ ইংল্যান্ডের ওপেনার ররি বার্নস হার্টলের টুইট শেয়ার করে একহাত নিয়েছেন৷ বার্নস লেখেন, ‘পুরুষ ক্রিকেটাররা সবসময় মহিলা ক্রিকট দলকে সমর্থন করে। কিন্তু তাদের এই দৃষ্টিভঙ্গি খুভ হতাশাজনক৷’ বার্নসের এই টুইট লাইক করেন ইংল্যান্ড দলের দুই তারকা বেন স্টোকস এবং জেমস আন্ডারসন।

আর এক ইংরেজ ক্রিকেটার বেন ডাকেটও হার্টলের এই টুইটের তীব্র সমালোচনা করেছেন৷ তিনি লেখেন করেন, “Average tweet. Don’t think any of the men’s team would have been.”অর্থাৎ নিম্নমানের টুইট৷ মহিলারা হারলে পুরুষ দলের কোনও ক্রিকেটার এরকম করত বলে মনে হয় না৷’ ভারতের বিরুদ্ধে চার টেস্টের সিরিজে প্রথম টেস্ট জিতলেও দ্বিতীয় ও তৃতীয় টেস্ট হেরে সিরিজে ১-২ পিছিয়ে পড়েছে রুট অ্যান্ড কোং৷ একই সঙ্গে পিঙ্ক বল টেস্ট হেরে জুনে আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দৌড় থেকে ছিটকে গিয়েছে ইংল্যান্ড৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।