লন্ডন: প্রথমদিনের শেষে জোস বাটলারের ব্যাটে লড়াই জিইয়ে ছিল ইংল্যান্ডের। দ্বিতীয়দিন সকালে স্কোরবোর্ডে ২৩ রান যোগ হওয়ার পর বাটলার ফিরতেই যবনিকা পড়ল ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংসে। অ্যাশেজে সমতা ফেরানোর লক্ষ্যে পঞ্চম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ২৯৪ রান তুলল থ্রি-লায়ন্সরা। জবাবে দ্বিতীয়দিন মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে অস্ট্রেলিয়ার রান ২ উইকেটে ৫৫।

৮ উইকেটে ২৭১ রান হাতে নিয়ে দ্বিতীয়দিন ক্রিজে নামেন গতদিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান জোস বাটলার ও জ্যাক লিচ। টেল-এন্ডারদের নিয়ে ৬৪ রানে অপরাজিত বাটলারের লড়াই দ্বিতীয়দিন কতটা দীর্ঘায়িত হয়, সেটাই ছিল দেখার বিষয়। তবে এদিন নিজের নামের পাশে মাত্র ৬ রান যোগ করেই প্যাট কামিন্সের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন ইংরেজ ব্যাটসম্যান। নবম উইকেটে বাটলার-লিচ জুটির ৬৮ রানের অবদান ইংল্যান্ডকে প্রথম ইনিংসে পৌঁছে দেয় ৩০০ রানের দোরগোড়ায়। বাটলার আউট হলেও লিচ ও ব্রডের কাছে সুযোগ ছিল দলের রান তিনশোর গন্ডি পার করানোর।

আরও পড়ুন: অন্যের ভুল থেকে পন্তকে শিক্ষা নিতে বললেন ক্লুজনার

কিন্তু বাটলার আউট হওয়ার পরের ওভারেই ব্যক্তিগত ২১ রানে মার্শের পঞ্চম শিকার হন লিচ। ২৯৪ রানে শেষ হয় ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংস। প্রত্যাবর্তন টেস্টেই ৫ উইকেট নিয়ে নজর কাড়েন অজি অল-রাউন্ডার মিচেল মার্শ। ৩ উইকেট নেন প্যাট কামিন্স ও ২টি উইকেট হ্যাজেলউডের দখলে। জবাবে ব্যাট হাতে নেমে আবারও ব্যর্থ ডেভিড ওয়ার্নার। দ্রুত পাঁচদিনের ক্রিকেটে প্রত্যাবর্তন সিরিজ ভুলতে চাইবেন অজি ওপেনার। জোফ্রা আর্চারের ডেলিভারিতে উইকেটের পিছনে বেয়ারস্টোর হাতে তালুবন্দি হন তিনি।

আরও পড়ুন: নিরপেক্ষ ভেন্যুতে ম্যাচ সরানোর সম্ভাবনাই নেই, জানিয়ে দিল পিসিবি

খুব বেশিক্ষন ক্রিজে স্থায়ী হতে পারেননি আরেক ওপেনার মার্কাস হ্যারিসও। ৩ রানে আর্চারের ডেলিভারিতেই স্টোকসের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। ১৪ রানে ২ উইকেট খোয়ানোর পর দলের হাল ধরেন মার্নাস ল্যাবুশেন ও চলতি অ্যাশেজের নায়ক স্টিভ স্মিথ। মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে ৩২ রানে অপরাজিত রয়েছেন ল্যাবুশেন। সঙ্গী স্মিথ অপরাজিত ১৪ রানে। প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া পিছিয়ে ২৩৯ রানে।