বার্মিংহ্যাম: বিশ্বকাপের জয়ের পর অ্যাশেজেও দারুণ শুরু করেছে ইংল্যান্ড৷ দ্বিতীয় দিনের শেষেই অস্ট্রেলিয়াকে পিছনে ফেলে এগিয়ে যাওয়ার হাতছানি জো রুটদের সামনে৷ তবে এর মধ্যে ইংল্যান্ড শিবিরে খারাপ খবর৷ চোটের জন্য অ্যাশেজ সিরিজ থেকে ছিটকে গেলেন ডানহাতি পেসার মার্ক উড৷

মাত্র দু’সপ্তাহ আগে ক্রিকেট মক্কায় ইতিহাস গড়েছে ইংল্যান্ড৷ প্রথমবার ওয়ান ডে বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পেয়েছে ইংরেজরা৷ লর্ডসে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয় ইয়ন মর্গ্যানরা৷ ওয়ান ডে-র বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়ে টেস্টের বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপের লড়াইয়ে নামে ইংল্যান্ড৷ ১ অগস্ট থেকে এজবাস্টনে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া অ্যাশেজ সিরিজ দিয়ে শুরু হয়েছে টেস্টের ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ৷

অ্যাশেজের লড়াই থেকে সরে দাঁড়ালেন ইংল্যান্ডের ঐতিহাসিক বিশ্বকাপ জয়ের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করা উড৷ বিশ্বকাপে ১৮টি উইকেট নিয়েছিলেন ডানহাতি ইংরেজ পেসার৷ বিশ্বকাপ থেকেই হাঁটুর চোটে ভুগছিলেন উড৷ কিন্তু যন্ত্রণা নিয়েও দারুণ বোলিং করেন তিনি৷ অ্যাশেজের প্রথম তিনটি টেস্টের দলে ছিলেন না উড৷ কারণ বিশ্বকাপ ফাইনালে সাইড স্ট্রেনের জন্য রি-হ্যাবে ছিলেন ২৯ বছরের ডানহাতি পেসার৷ তবে এখন হাঁটুর অস্ত্রোপচারের জন্য অ্যাশেজ সিরিজ থেকেই সরে দাঁড়ালেন উড৷

ইংল্যান্ড দলের পক্ষে এক বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, ‘ইংল্যান্ড ফাস্ট বোলার মার্ক উডের বাঁ-হাঁটুতে অস্ত্রোপচার হবে৷ বিশ্বকাপ থেকেই হাঁটুর চোটে ভুগছে উড৷ ফলে মরশুমের বাকি ম্যাচ গুলি থেকে মাঠে বাইরে থাকতে হবে ডারহ্যামের এই ক্রিকেটারকে৷ এজবাস্টন টেস্টে প্রথম দিন মাত্র চার ওভার বোলিং করেই মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন রুটের দলের এক নম্বর পেসার জেমস অ্যান্ডারসন৷ তার পর থেকে আর বল করতে পারেননি ৩৭ বছরের ডানহাতি পেসার৷ যদিও মাঠ ছাড়ার আগে দারুণ বোলিং করেন জিমি৷ চার ওভারের মধ্যেই তিন ওভারই মেডন দেন অ্যান্ডারসন৷ চার ওভারে মাত্র এক রান দেন তিনি৷

জিমির অনুপস্থিতিতেও দারুণ বোলিং করে অস্ট্রেলিয়াকে ২৮৪ রান শেষ করে দেন স্টুয়ার্ট ব্রড-ক্রিস ওকসরা৷ ব্রড পাঁচটি এবং ওকস তিনটি উইকেট নেন৷ তবে মাত্র ১২২ রানে আট উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা অজি ইনিংসকে লড়াকু সেঞ্চুরি করে তিনশোর দোরগোড়ায় পৌঁছে দেন স্টিভ স্মিথ৷ ১৪৪ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন প্রাক্তন অজি অধিনায়ক৷

অস্ট্রেলিয়ার ২৮৪ রান তাড়া করে শুক্রবার দ্বিতীয় দিনের শেষে চার উইকেটে হারিয়ে ২৬৭ রান তুলেছে ইংল্যান্ড৷ ররি বার্নসের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরিতে ভর করে লড়াই করে ইংল্যান্ড৷ দিনের শেষে ১২৫ রানে অপরাজিত রয়েছেন বার্নস৷ হাফ-সেঞ্চুরি করেন ক্যাপ্টেন রুট৷ ৫৭ রান করে আউট হন তিনি৷ বার্নসের সঙ্গে ব্যক্তিগত ৩৮ রানে ক্রিজে রয়েছেন বেন স্টোকস৷