লন্ডন: ইউরোপীয় ইউনিয়ন ছাড়ার কয়েক ঘন্টা কেটেছে। রীতিমতো ‘হুমকি’ শুনতে পেলেন ইংল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তাঁর বাবা দিয়েছেন কড়া বার্তা। বলেছেন দেশ ছেড়ে দেব।

ইংল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর বাবা স্ট্যানলি জনসন । ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমর্থক। তাই ইংল্যান্ডে আর থাকবেন না ঠিক করেছেন। ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্যতম সদস্য ফ্রান্সের নাগরিকত্ব চান তিনি। খোদ প্রধানমন্ত্রী তথা পুত্র কে শুনিয়ে বলেছেন, অবিলম্বে ইংল্যান্ড ছেড়ে দিতে চান।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ইংল্যান্ডের আনুষ্ঠানিকভাবে বেরিয়ে যাওয়া মেনে নিতে পারছেন না প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের বাবা। তিনি ইতিমধ্যে ফ্রান্সের নাগরিকত্ব পাওয়ার আবেদন প্রক্রিয়া শুরু করেছেন বলে জানিয়েছেন। ফ্রান্সের একটি রেডিও চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই কথা জানিয়েছেন।

ব্রিটেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে গেছে। তবে স্ট্যানলি জনসন চাইছেন ইইউর সঙ্গে সম্পর্ক অটুট রাখতে। তাই ইউরোপীয় ইউনিয়নের আরেক সদস্য রাষ্ট্র ফ্রান্সের নাগরিকত্ব গ্রহণ করতে চাইছেন ৮০ বছর বয়স্ক স্ট্যানলি। এএফপি সংবাদ সংস্থা জানাচ্ছে এই খবর।

সাক্ষাৎকারে বরিস জনসনের বাবা স্ট্যানলি জনসন বলেন, এমন নয় যে যে একজন ব্রিটিশ নাগরিক ফরাসি হয়ে যাচ্ছেন। ফ্রান্সের সঙ্গে আমার নাড়ির টান। আমার মা ফরাসি।আমি ইইউর সঙ্গে থাকতে চাই। সে কারণেই ফ্রান্সে থাকতে ইচ্ছুক।

বিবিসি জানাচ্ছে, ইংল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর বাবা স্ট্যানলি জনসন ইউরোপীয় পার্লামেন্টের একজন প্রাক্তন সদস্য। ২০১৬ সালে ব্রেক্সিট বিষয়ক গণভোটের সময় তিনি ইউ পক্ষেই ভোট দিয়েছিলেন। রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, ১৯৭৩ সালে ইংল্যান্ড ইইউতে যোগ দেয় । তখনই তিনি আন্তর্জাতিক এই সংস্থার হয়ে বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে নিযুক্ত হন।

বিবিসি জানাচ্ছে, ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে ইংল্যান্ডের অর্ধশতকের অংশীদারত্বের ইতি হয়েছে। ২০২০ সাল শেষের সময় রাত ১১টা থেকে দেশটি ইউরোপের আইন অনুসরণ বন্ধ করেছে। ইংল্যান্ড জানিয়েছে, নতুন ২০২১ সালে ভ্রমণ, বাণিজ্য, অভিবাসন ও নিরাপত্তা সহযোগিতার ক্ষেত্রে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ভিন্ন আইন মেনে চলা হবে।

২০১৬ সালে ব্রেক্সিটের গণভোট হওয়ার সাড়ে তিন বছর পর গত ৩১ জানুয়ারি ২৭ সদস্যের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক এই সংঘ থেকে বের হয়ে আসার ঘোষণা করে ইংল্যান্ড। সেই প্রক্রিয়া শেষ হলো।

ইংল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেন, দেশ নিজ হাতে স্বাধীনতা ফিরে পেয়েছে। দীর্ঘ ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পর আমরা এবার নিজেদের কাজ ভালোভাবে করতে পারব। তবে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন জানান, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে গেলেও ইংল্যান্ড মিত্র রাষ্ট্র হিসেবে থাকবে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরোনোর সুবাদে ইংল্যান্ডের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলি ইউরোপীয় অভ্যন্তরীণ বাজারে শুল্কমুক্ত প্রবেশের সুযোগ পাবে। তবে প্রশাসনিক কিছু জটিলতা তৈরি হচ্ছে। দ্রুত সেসব কাটিয়ে উঠতে তৈরি ইংল্যান্ড।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।