লন্ডন: বিশ্বজয়ের বিশেষ পুরস্কার হিসেবে ইংরেজ ক্রিকেটারদের হাতে পৌঁছে গেল ডব্লুডব্লুই চ্যাম্পিয়নশিপ বেল্ট। বিশ্বকাপ ফাইনালে নাটকীয় জয়ের পরই ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলকে বিশেষ এই সম্মান প্রদান করার কথা ঘোষণা করেছিলেন ডব্লুডব্লুই এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ট্রিপল এইচ। সেইমতো অ্যাশেজের তৃতীয় টেস্ট জয়ের পর ঐতিহ্যের লর্ডসে ডব্লুডব্লুই চ্যম্পিয়নশিপের বিশেষ বেল্ট হাতে সেলিব্রেশনে মেতে উঠলেন ইংরেজ ক্রিকেটাররা।

রবিবার সকালে টুইটারে ডব্লুডব্লুই চ্যাম্পিয়নশিপ বেল্ট হাতে জোফ্রা আর্চার, জেসন রয়দের ছবি পোস্ট করা হয় ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে। ক্যাপশন হিসেবে লেখা হয়, ‘পুরস্কার পৌঁছে গিয়েছে।’ ইংল্যান্ডের বিশ্বজয়ের এই পুরস্কারে বিশেষত্ব হিসেবে রয়েছে আইকনিক ক্রাউন মাথায় সোনার থ্রি-লায়ন্স ফলক। বিশ্বজয়ের স্টেডিয়ামেই সেই বেল্ট হাতে ফটোসেশনে ধরা দিলেন জোফ্রা আর্চার, জেসন রয়, জোস বাটলার, জো রুট, জনি বেয়ারস্টোরা।

 

ইংল্যান্ডের বিশ্বজয়ের পর প্রাক্তন ডব্লুডব্লুই তারকা তথা বর্তমান এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ট্রিপল এইচ ইয়ন মর্গ্যানের দলকে অভিনন্দন জানিয়ে একটি টুইট করেন। যেখানে তিনি লেখেন, ‘দুর্দান্ত একটি টুর্নামেন্ট। ভয়ঙ্কর ফাইনাল। যোগ্য দল হিসেবে ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপ জয়ের জন্য ইংল্যান্ড দলকে অভিনন্দন।’ একইসঙ্গে ডব্লুডব্লুই চ্যাম্পিয়নশিপ বেল্টের একটি ছবি পোস্ট করে ট্রিপল এইচ জানান, এই পুরস্কার তোমাদের জন্য।

উল্লেখ্য, গত ১৪ জুলাই লর্ডসে বিশ্বকাপ ফাইনালে ইংল্যান্ড মুখোমুখি হয়েছিল নিউজিল্যান্ডের। উত্তেজক সেই ফাইনাল ক্রিকেট বিশ্বকাপের ইতিহাসে অচিরেই সেরা ফাইনালের তকমা আদায় করে নিয়েছে। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ড্র হওয়ায় ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। সেখানে ফের ড্র হওয়ায় ৫০ ওভারে বাউন্ডারির নিরীখে নিষ্পত্তি হয় ম্যাচের। বিজয়ী হয় ইংল্যান্ড। বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে অ্যাশেজের লড়াইয়ে রয়েছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল। আপাতত সিরিজের ফলাফল ১-১। আগামী বুধবার থেকে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে শুরু সিরিজের তৃতীয় টেস্ট।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।