লন্ডন: অক্সফোর্ডের টিকা কি কাজে দেবে? উত্তর নেই এখনও। অথচ করোনায় মৃতের তালিকা দেখিয়ে দিচ্ছে বিশ্বে দ্বিতীয় স্থান ইংল্যান্ডের। এই অবস্থায় ৩৯ হাজার মৃতদেহের সিঁড়ি পেরিয়ে মুখ ঢেকে সচল হবে দেশটি।

বিবিসি জানাচ্ছে, ইংল্যাণ্ডে ১৫ই জুন থেকে গণপরিবহনে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। প্রবল করোনা সংক্রমণ নিয়েই নতুন করে জীবন ছন্দে ফিরবেন ব্রিটিশরা।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, রাস্তায় মাস্ক পরা না থাকলে নিয়মভঙ্গকারীদের জরিমানা হতে পারে। ইংল্যান্ডের পরিবহণ মন্ত্রী গ্র্যান্ট শ্যাপস জানিয়েছেন, নিয়ম না মানলে তাকে বাস-ট্রেন থেকে নামিয়ে দেওয়া বা জরিমানা করা হতে পারে। শিশুদের ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে না।

ওয়ার্ল্ডোমিটার এবং ইংল্যান্ডের সরকারি হিসেবে বুধবার করোনাভাইরাস সংক্রমণে সর্বশেষ মোট মৃত ৩৯ হাজার ৯০৪ জন। এটি পৃথিবীতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। করোনায় সর্বাধিক মৃত্যু আমেরিকায়। ওই দেশে মৃত ১ লক্ষ ১০ হাজারের বেশি।

ইংল্যান্ডের স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানাচ্ছে, ধীরে ধীরে লকডাউন শিথিল করা হচ্ছে। কোভিড-১৯ সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার কমে এলেও ইউরোপের অন্য দেশগুলোর তুলনায় অনেক বেশি।

এদিকে ইংল্যান্ডে থাকা প্রবাসী বিভিন্ন দেশের নাগরিকদের মধ্যে করোনা সংক্রমণ বড় করেই ছড়াচ্ছে। বিশেষ করে বাংলাদেশি, পাকিস্তানি ও ভারতীয়দের মধ্যে। যে সব এলাকায় তাদের বসবাস সেখানকার পরিস্থিতি চিন্তাজনক।

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।