মাদ্রিদ: থ্রিলার ম্যাচ শেষে যেন হাঁফ ছেড়ে বাঁচল ইংল্যান্ড দল ও ব্রিটিশ কোচ গ্যারেথ সাউথগেট৷ এ যেন তীরে এসে তরি ডোবার মতো পরিস্থিতি৷ উয়েফা নেশনস লিগে ম্যাচে শেষ বাঁশি বাজার আগে ইংল্যান্ডের উপর চাপ বাড়িয়ে গোল শোধ করে স্পেন৷ ম্যাচের ইনজুরি টাইমে ৯৭ মিনিটে ব্যবধান কমিয়ে স্কোরলাইন ২-৩ করেন স্পেনের অধিনায়ক রামোস৷ শেষ পর্যন্ত অবশ্য ইংল্যান্ড পুরো পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে৷ থ্রি লায়ন্সরা ম্যাচ জেতে ৩-২ ব্যবধানে৷

থ্রিলার ম্যাচে স্পেনকে তাঁদের ঘরের মাঠে হারিয়ে ৩১ বছরের খরা কাটাল ইংল্যান্ড৷ এর আগে শেষবার স্পেনের ঘরের মাঠে ইংল্যান্ড জয় পেয়েছিল ১৯৮৭ সালে৷ সেবার স্পেনের মাটিতে স্পেনকে মাটি ধরিয়ে ৪-২ ব্যবধানে ম্যাচ জিতেছিল ব্রিটিশরা৷ এরপর কেটে গিয়েছে ৩১ বছর৷ স্পেনের মাটিতে এই ৩১ বছরে ম্যাচ জয়ের নজির নেই ইংল্যান্ডের৷ তিন দশকের সেই খরা কাটিয়ে নেশনস লিগের ম্যাচ জিতল গ্যারেথ সাউথ গেটের ছেলেরা৷

ইংল্যান্ডের তিনটি গোলই আসে প্রথমার্ধে৷ স্টালিং ঝড়ের সামনে স্প্যানিশ ডিফেন্সকে ফিকে দেখায়৷ ১৬ ও ৩৮ মিনিটে জোড়া গোল স্টার্লিংয়ের৷ ব়্যাশফোর্ডে পাশ থেকে ডিফেন্স চিড়ে দর্শনীয় প্রথম গোল স্টার্লিংয়ের৷ দ্বিতীয়টা কেনের পাস থেকে সহজ সুযোগে বল তেকাঠিতে ঠেলে দেন স্টার্লিং৷ ইংল্যান্ডের প্রথমার্ধের অন্য গোলটি মার্কাস ব়্যাশফোর্ডের৷ অধিনায়ক হ্যারি কেনের ঠিকানা লেখা পাস থেকে স্পেনের জাল কাঁপিয়ে দেন ব়্যাশফোর্ড৷

প্রথমার্ধে গোলের দরজা খুলতে না পারলেও, দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণে ঝড় তোলে ইংল্যান্ড৷ ৫৮ মিনিটে কর্নার থেকে হেডে গোল তারই ফল৷ এরপর ম্যাচের ৯৭মিনিটে গোল করে যান রামোস৷