লন্ডন: সিরিজ জয় আসুক না আসুক, সিরিজ হারতে হচ্ছে না অন্তত৷ চার ম্যাচের শেষে অস্ট্রেলিয়া সিরিজে এগিয়ে রয়েছে ২-১ ব্যবধানে৷ সুতরাং শেষ ম্যাচের ফল যাই হোক না কেন, অস্ট্রেলিয়ার কাছেই থাকছে অ্যাশেজের ট্রফি৷ অন্যদিকে, অ্যাশেজ পুনরুদ্ধার এবারের মতো সম্ভব নয় ইংল্যান্ডের পক্ষে৷ তবে শেষ ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে সিরিজ হার এড়ানো সম্ভব৷

এমন অবস্থায় ওভালে টস জিতে ইংল্যান্ডকে প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় অস্ট্রেলিয়া৷ ওপেনিং জুটি শক্ত ভিত গড়তে না-পারলেও প্রাথমিক বিপর্যয়ের মুখে পড়তে হয়নি ব্রিটিশদের৷ যদিও মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা প্রতিরোধ গড়তে না-পারায় একসময় চাপে পড়ে যেতে হয় তাদের৷ শেষবেলায় জ্যাক লিচকে সঙ্গে জোস বাটলারের লড়াই আপাতত ইংল্যান্ডকে ম্যাচ থেকে ছিটকে যেতে দেয়নি৷

আরও পড়ুন: অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামের বিরাট স্ট্যান্ড উন্মোচনে বিরুষ্কা

ররি বার্নসের সঙ্গে ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নামেন জো ডেনলি৷ দলগত ২৭ রানের মাথায় ডেনলিকে আউট করেন প্যাট কামিন্স৷ ক্রিজ ছাড়ার আগে ১৪ রান সংগ্রহ করেন তিনি৷ বার্নসের সঙ্গে জুটি বেঁধে জো রুট ৭৬ রান যোগ করেন৷ শেষে বার্নস ৪৭ রান করে হ্যাজেলউডের বলে আউট হন৷

দু’বার সহজ জীবন দান পেয়ে রুট ব্যক্তিগত হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন৷ ৫৭ রানের কার্যকরী ইনিংস খেলে ইংল্যান্ড দলনায়ক কামিন্সের বলে বোল্ড হন৷ ইংল্যান্ডের মিডল অর্ডারে ধস নামান সিরিজে প্রথম বার মাঠে নামার সুযোগ পাওয়া মিচেল মার্শ৷ তিনি পর পর ফিরিয়ে দেন বেন স্টোকস (২০), জনি বোয়ারস্টো (২২), স্যাম কারান (১৫) ও ক্রিস ওকসকে (২)৷ জোফ্রা আর্চার ৯ রান করে হ্যাজেলউডের বলে আউট হন৷

আরও পড়ুন: BREAKING: বাদ পড়লেন রাহুল, টেস্ট দলে নতুন মুখ শুভমন

জ্যাক লিচকে সঙ্গে নিয়ে দিনের শেষবেলাটুকু নির্বিঘ্নে কাটিয়ে দেন বাটলার৷ ইতিমধ্যে ব্যক্তিগত হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেছেন তিনি৷ ৬টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে ৮৪ বলে ৬৪ রান করে অপরাজিত রয়েছেন বাটলার৷ ৩১ বলে ১০ রান করে ব্যাট করছেন লিচ৷ ইংল্যান্ড আপাতত প্রথম দিনের শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৭১ রান তুলেছে৷

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে প্রথম দিনে ৩৫ রানের বিনিময়ে ৪টি উইকেট নিয়েছেন মিচেল মার্শ৷ ২টি করে উইকেট দখল করেছেন প্যাট কামিন্স ও জোস হ্যাডেলউড৷ পিটার সিডল ও নাথন লায়ন কোনও উইকেট পাননি৷