দুবাই: ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া ওয়ান-ডে সিরিজ খেলে আমিরশাহীতে আইপিএলের বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজিতে যোগ দেবেন একঝাঁক ইংরেজ এবং অজি ক্রিকেটার। আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর ইংল্যান্ডের মাটিতে ওয়ান-ডে সিরিজের শেষ ম্যাচটি খেলবে অস্ট্রেলিয়া। এরপর ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলতে মরুশহরে পা রাখবেন মর্গ্যান, স্মিথরা। কিন্তু ইংল্যান্ডের মাটিতে সিরিজ খেলে এসে আইপিএলে কবে থেকে মাঠে নামতে পারবেন ইংল্যান্ড এবং অজি ক্রিকেটাররা।

বুধবার ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া সিরিজের শেষ ওয়ান ডে। তার পরই তাঁরা চলে আসবেন আইপিএল খেলতে। নিয়ম অনুসারে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে পৌঁছনোর পর তাঁদের ছয় দিন থাকতে হবে কোয়ারেন্টাইনে। আর সেই মেয়াদ কমানোর জন্য ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের কাছে আবেদন করলেন ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটাররা।

ম্যাঞ্চেস্টার থেকে দুবাইয়ের উড়ান ধরবেন অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের ২১ জন ক্রিকেটার। তাঁরা দুবাই পৌঁছবেন বৃহস্পতিবার ১৭ সেপ্টেম্বর। এদিকে, আইপিএল শুরু হচ্ছে শনিবার ১৯ তারিখ। কোয়রান্টিনে ছয় দিন থাকতে হলে ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে তাঁরা আইপিএলে অংশ নিতে পারবেন। আর এখানেই সমস্যায় পড়ছে ফ্র্যাঞ্চাইজিরা। অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড, দুই দেশের ক্রিকেটারদের তরফে এক তারকা ক্রিকেটার সৌরভের কাছে চিঠি লিখেছেন।

এই মুহূর্তে বোর্ডের পদাধিকারীদের সঙ্গে রয়েছেন দুবাইয়ে রয়েছেন সৌরভ। আইপিএল আয়োজনের সঙ্গে যুক্ত এককর্তা সংবাদ সংস্থা-কে জানিয়েছেন, ‘হ্যাঁ, বোর্ড প্রেসিডেন্টের কাছে এই মর্মে এসেছে একটি চিঠি এসেছে। আইপিএলে অংশ নিতে চলা সমস্ত অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের ক্রিকেটাররা এই অনুরোধ করেছেন৷ ক্রিকেটাররা মনে করছে যে তারা জৈব সুরক্ষা বলয়েই ছিল। তারা ইংল্যান্ডের বায়ো-বাবল থেকে আমিরশাহীর বায়ো-বাবলে আসছে।’

সম্প্রতি একই কথা বলেছেন কেকেআর সিইও ভেঙ্কি মাইসোর৷ আমিরশাহীতে পৌঁছনোর পর দলের প্রথম ম্যাচেই সকল ইংরেজ এবং অজি ক্রিকেটারের সার্ভিস পেতে পারে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলি। ক্রিকেটাররা যেহেতু একটা জৈব নিরাপত্তা বলয় থেকে এসে আরেকটি জৈব নিরাপত্তা বলয়ে প্রবেশ করছে, সেহেতু বিসিসিআই-এর এসওপি মেনে তাদের ছ’দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনের প্রয়োজন নেই।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।