সাউদাম্পটন: প্রথমদিন বাধ সেধেছিল প্রকৃতি। বৃষ্টির কারণে বল গড়িয়েছিল মাত্র ১৭.৪ ওভার। এক উইকেটে ৩৫ রান নিয়ে দ্বিতীয়দিন সাউদাম্পটনের অ্যাজাস বোলে খেলা শুরু করে ইংল্যান্ড। বৃষ্টির কারণে আউটফিল্ড ভিজে থাকায় দ্বিতীয়দিনও কিছুটা দেরিতে শুরু হয় খেলা। খেলা শুরু হতেই অ্যাজাস বোলের বাইশ গজে শাসন শুরু হয় শ্যানন গ্যাব্রিয়েল-জেসন হোল্ডারদের।

দলীয় ৪৮ রানের মাথায় এদিন দ্বিতীয় উইকেটের পতন হয় ইংল্যান্ডের। ইংরেজ শিবিরে দিনের প্রথম আঘাতটা হানেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েলই। গতকাল সিবলের মতোই ক্লিন বোল্ড হয়ে এদিন প্যাভিলিয়নে ফেরেন জো ডেনলি। ব্যক্তিগত পরের ওভারেই গ্যাব্রিয়েল ফিরিয়ে দেন ররি বার্নসকে। এরপর অ্যাজাস বোলে আরম্ভ হয় ক্যারিবিয়ান অধিনায়কের ম্যাজিক স্পেল। যে কারণে ক্রিজে বেশিক্ষণ থিতু হতে পারেননি জ্যাক ক্রলে এবং ওলি পোপ। ক্রলে ফেরেন ১০ রানে এবং পোপের সংগ্রহে ১২ রান। ১০০ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা ইংরেজ শিবিরের হাল ধরেন অধিনায়ক বেন স্টোকস ও তাঁর ডেপুটি জোস বাটলার।

৫ উইকেট হারিয়ে ১০৬ রান তুলে মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে যায় ইংল্যান্ড। ষষ্ঠ উইকেটে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করেন দুই অধিনায়ক। তবে পার্টনারশিপ ৬৭ রানের বেশি স্থায়ী হয়নি। দলীয় ১৫৪ রানের মাথায় ব্যক্তিগত অর্ধশতরান থেকে ৭ রান দূরে হোল্ডারের শিকার হন স্টোকস। উইকেটের পিছনে ডাউরিচের হাতে তালুবন্দি হয়ে সাজঘরে ফেরেন ইংল্যান্ডের স্টপগ্যাপ অধিনায়ক। অধিনায়কের পদাঙ্ক অনুসরণ করে এরপর প্যাভিলিয়নের রাস্তা ধরেন বাটলার। হোল্ডারের পরের ওভারে বাটলারও উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ৩৫ রানে।

এরপর আর্চারকে শূন্য রানে ফিরিয়ে পঞ্চম উইকেট ঝুলিতে ভরেন উইন্ডিজ অধিনায়ক। শেষদিকে ডমিনিক বেসের মূল্যবান ৩১ রানে ইংল্যান্ডকে দু’শো রানের গন্ডি পার করতে সাহায্য করে। ১০ রানের অবদান রাখেন জেমস অ্যান্ডারসন। শেষে মার্ক উডকে আউট করে নিজের ষষ্ঠ উইকেটটি মুঠয় নেন হোল্ডার। অন্যদিকে অ্যান্ডারসনকে বোল্ড করে নিজের চতুর্থ শিকার করেন গ্যাব্রিয়েল।

করোনার জেরে আইসিসি বল পালিশে লালা ব্যবহার নিষিদ্ধ করায় অনেকে আশঙ্কা প্রকাশ করছিলেন সিমারদের জন্য। তবে করোনা পরবর্তী সময় প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে কিন্তু দাপট দেখালেন উইন্ডিজ সিমাররাই। যদিও স্যাঁতসেঁতে উইকেটে শুরু থেকেই আবহাওয়ার কিছুটা সহযোগীতা পেতে থাকেন দুই ক্যারিবিয়ান পেসার। লালার পরিবর্তে সেই আবহাওয়ার ফায়দা পুরোপুরি তুলে নিলেন দু’জনে। পক্ষান্তরে টস জিতে এমন আবহাওয়ায় স্টোকসের প্রথমে ব্যাটিং নেওয়ার সিদ্ধান্ত উচিৎ হয়নি বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞমহল।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ