নয়াদিল্লি: দীর্ঘদিন ধরে নুন্যতম বেতন বৃদ্ধি সহ একাধিক দাবিতে আন্দোলন চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীরা। কিন্তু মাসের পর মাস কেটে গেলেও সেই অর্থে সরকারি কর্মীদের জন্যে বড় কিছু ঘোষণা হয়নি। এমনকি মোদী সরকারের আর্থিক বাজেটেও সেই অর্থে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্যে কিছু ঘোষণা করা হয়নি। তবে সূত্রে জানা যাচ্ছে, খুব শীঘ্রই কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের জন্যে বড় কিছু ঘোষণা করতে চলেছে মোদী সরকার। শোনা যাচ্ছে, দীর্ঘদিনের দাবি মেনে নুন্যতম বেতন বৃদ্ধি মেনে নিতে পারে সরকার।

পাশাপাশি খুব শীঘ্রই সরকারি কর্মীদের জন্যে ডিএ ঘোষণা করতে চলেছে মোদী সরকার।

জানা যাচ্ছে, নুন্যতম ৪ শতাংশ ডিএ ঘোষণা করা হতে পারে। আর তা করা হলে এক ধাক্কায় ১৭ শতাংশ থেকে ২১ শতাংশে পৌঁছে যেতে পারে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের মহার্ঘ ভাতা। এর ফলে ১ কোটিরও বেশি কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারী এবং পেনশনভোগীরা উপকৃত হবেন। বছরে দুবার কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের ডিএ বৃদ্ধি করে সরকার। সেই মতো নতুন বছর অর্থাৎ ২০২০ সালের প্রথম ডিএ ঘোষণা করতে চলেছে মোদী সরকার।

উল্লেখ্য, গত বছর দীপাবলির উপহার হিসেবে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের মহার্ঘ ভাতা বাড়ানো হয়েছে। ৫ শতাংশ ডিএ বাড়ানো হয়। এর ফলে ১২ শতাংশ থেকে মহার্ঘ ভাতা বেড়ে হয় ১৭ শতাংশ। মোদীর সরকারের এই ঘোষণার ফলে প্রায় ৫০ লক্ষ কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী উপকৃত হন।

পাশাপাশি ৬৫ লক্ষ পেনশনভোগী উপকৃত হন। কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্যে এজন্য সরকারের খরচ হয় প্রায় ১৬ হাজার কোটি টাকা। এবার বাজেটে নুন্যতম চার শতাংশ ডিএ ঘোষণা করতে চলেছে মোদী সরকার। যার ফলে ১৭ শতাংশ থেকে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্যে ডিএ’র পরিমাণ বেড়ে দাঁড়াবে ২১ শতাংশ।

প্রসঙ্গত, ধুকছে দেশের আর্থিক অবস্থা। এই অবস্থায় গত কয়েকদিন আর্থিক বাজেট পেশ করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। সাধারণ মানুষের হাজারও প্রত্যাশার মধ্যে বাজেট পেশ করেন তিনি। বাজেটে বিশেষ নজর ছিল সরকারি কর্মচারীদের উপর। মনে করা হয়েছিল, এবারের বাজেটে সরকারি কর্মচারীদের জন্যে বড়সড় ঘোষণা করা হতে পারে। কিন্তু তেমন কিছুই ঘোষণা হয়নি বাজেটে। ফলে ক্ষুব্ধ সরকারি কর্মীদের একাংশ। তবে এবার তাঁদের মন রাখতেই বড়সড় ঘোষণার পথে মোদী সরকার। সবকিছু ঠিক থাকলে চলতি মাসের শেষের দিকেই ডিএ সংক্রান্ত বড়সড় ঘোষণা সরকারের। পাশাপাশি নুন্যতম বেতন বৃদ্ধি নিয়েও বড়সড় কিছু জানাতে পার সরকার।