রাজ্য সরকারি কর্মী
রাজ্য সরকারি কর্মী (ফাইল ছবি)

নয়াদিল্লি:  সরকারি কর্মীদের জন্যে স্বস্তির খবর। পাঁচ বছরের আগে মিলত না গ্র্যাচুইটির অর্থ। পাঁচ বছরের পর থেকে মিলত এই সুবিধা। কিন্তু দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে গ্র্যাচুইটি পাওয়ার নুন্যতম শর্ত কমানোর দাবি জানানো হচ্ছিল। অবশেষে স্বস্তির খবর পাওয়ার ইঙ্গিত। গ্র্যাচুইটি পাওয়ার ন্যূনতম শর্ত কমানোর বিষয়ে ভাবনাচিন্তা করছে কেন্দ্র। এক সংবাদমাধ্যমে এমনটাই জানিয়েছেন এক সরকারি আধিকারিক।

শুধু সরকারি কর্মীরাই নন, এই সিদ্ধান্তে বেসরকারি সংস্থার কর্মীরাও উপকৃত হবেন। ক্রমশ বাড়ছে প্রতিযোগিতা। এক চাকরি থেকে অন্য সংস্থায় ঝাঁপ দেওয়ার প্রবণতা রয়েছে কর্মীদের। অতিরিক্ত বেতনের জন্যে অনেকেই সংস্থা বদল করে থাকে। অন্যদিকে, সরকারি ক্ষেত্রেও চাকরি মেয়াদ কমছে। কমছে সুরক্ষা।

বাড়ছে চুক্তি ভিত্তিক কাজের পরিধি। আর সেই কারণে কর্মীরা প্রাপ্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। কম সময়ে যেহেতু কাজ হচ্ছে তাই বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই মিলছে না গ্র্যাচুইটি। সেজন্য গ্র্যাচুইটির পাঁচ বছরের ন্যূনতম শর্ত কমিয়ে এক থেকে তিন বছরের মধ্যে করতে হবে বলে বারবার জানানো হয়েছে।

এই দাবিতে একাধিকবার আন্দোলনে করেছে কর্মীরা। অবশেষে এই বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে বলে খবর। সরকারি এক আধিকারিক জানিয়ছেন, দীর্ঘদিন ধরেই গ্র্যাচুইটির সীমা কমানোর দাবি করা হচ্ছিল। অবশেষে এই বিষয়ে সরকারি স্তরে আলোচনা শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই আধিকারিক।

কীভাবে তা পাঁচ বছর থেকে কমিয়ে তিন বছর কিংবা ১ বছরে নিয়ে আসা হবে তা নিয়ে চলছে আলোচনা। এই বিষয়ে খুব শীঘ্রই সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলেও জানিয়েছেন ওই সরকারি আধিকারিক। সরকারের এই সিদ্ধান্তে লক্ষাধিক কর্মী উপকৃত হবেন বলে মনে করা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, অল্প সময়ে কাজ করার পর

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও