হারারে: সাঁইত্রিশ বছর একটানা ক্ষমতায় থেকেছিলেন৷ অবশেষে সেনা অভ্যুত্থানেই সরতে হয়েছে রবার্ট মুগাবেকে৷ ক্ষমতার পালাবদলে এবার জিম্বাবোয়ের কুর্সিতে নতুন প্রেসিডেন্ট এমারসন মানানগাগাওয়া৷

এদিকে প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন মুগাবের নির্দেশে ভাইস প্রেসিডেন্টে এমারসনের ক্ষমতা কেড়ে নেওয়া হয়েছিল৷ অভ্যুত্থানের শুরুতেই দক্ষিণ আফ্রিকায় পালিয়ে গিয়েছিলেন তিনি৷ পরে মুগাবে পদত্যাগ করতেই দেশে ফেরেন৷ এখন এমারসনই প্রেসিডেন্ট৷

শুক্রবার এমারসনের শপথ নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জিম্বাবোয়ের রাজনৈতিক ইতিহাস নতুন মোড় নিল৷ স্বাধীনতার পর দেশটিতে দ্বিতীয়বার প্রেসিডেন্টের পরিবর্তন হয়েছে৷ শুক্রবার রাজধানী হারারে শহরের জাতীয় স্টেডিয়ামে শপথ নিয়েছেন এমারসন৷ তাকে ক্ষমতায় দেখে দেশজুড়ে ছড়িয়েছে উল্লাস৷ জনগণের বক্তব্য, দুর্নীতিবাজ প্রেসিডেন্ট মুগাবের তৈরি করা পরিস্থিতির অবসান চাই৷

৯৪ বছরের মুগাবে বিশ্বের প্রবীণতম রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব৷ ১৯৮০ সালে ব্রিটিশ শাসন মুক্ত হওয়া জিম্বাবোয়ের স্বাধীনতার যুদ্ধের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তিনি৷ তারপর থেকে গত ৩৭ বছর ধরে তিনিই দেশ শাসন করছিলেন৷ অভিযোগ উঠেছিল, স্ত্রী গ্রেসকে প্রেসিডেন্ট করতে চাইছিলেন মুগাবে৷ ফলে দলের অভ্যন্তরেই শুরু হয় বিরোধ৷ অন্যদিকে খরা ও অর্থনৈতিক সংকটে জর্জরিত জিম্বাবোয়েতেই বিলাসবহুল জীবন যাপনের জেরে মুগাবের স্ত্রী বারবার সমালোচিত হন৷

পরিস্থিতি এমন দাঁড়ায় যে, শেষপর্যন্ত সেনা বাহিনীকে হস্তক্ষেপ করতে হয়৷মুগাবের সরকারি ভবন ঘিরে নেয়ে সেনা ট্যাংক৷ পালিয়ে যান স্ত্রী গ্রেস৷ তিনি নামিবিয়াতে আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে৷