স্টাফ রিপোর্টার , শালবনি : গ্রামের পাশেই এক তুলো ক্ষেত থেকে উদ্ধার হল পূর্ণবয়স্ক হাতির মৃতদেহ। ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন ছিলেন বন দফরের আধিকারিকরা। তবে মৃত্যুর কারন নিয়ে ধোঁয়াশা বন দফতরের কাছে। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনীর ভীমপুর অঞ্চলের কদমাশোলে। যা বনদফতরের পিড়াকাটা রেঞ্জ সীমান্ত সংলগ্ন লালগড় রেঞ্জ।

স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে, বেশ কয়েকদিন ধরে হাতির তাণ্ডবে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছিল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনী ব্লকের একাধিক গ্রাম, ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে একাধিক জমির ফসল। হাতির হামলায় প্রাণ হারিয়েছে একদাশ শ্রেণীর এক পড়ুয়া। এবার সেই হাতিরই মৃতদেহ উদ্ধার হলো রবিবার সকাল নাগাদ ৬ নম্বর ভীমপুর অঞ্চলের কথা কদমাশোল গ্রামে। গ্রামবাসীরা একটি তিলক্ষেতে একটি পূর্ণবয়স্ক হাতির মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে সাথে সাথে খবর দেয় বনদফতরে।

খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে যায় লালগড় রেঞ্জের রেঞ্জার শ্রাবণী দে ও পিড়াকাটা রেঞ্জের রেঞ্জার পাপন মহন্ত সহ একাধিক বনদফতরের আধিকারিকরা। কি কারণে মৃত্যু হয়েছেও হাতিটির তা তদন্ত শুরু করেছে বনদফতর আধিকারিকরা। তাঁরা জানাচ্ছেন, ‘কিভাবে হাতিটির মৃত্যু হয়েছে তা ময়নাতদন্তের পরই জানা যাবে। প্রাথমিকভাবে কিছুই বুঝতে পারা যাচ্ছে না। বনদফতরের চিকিৎসকদের খবর পাঠানো হয়েছে। তারা উপস্থিত হলেই ময়না তদন্তের পরই হাতিটির মৃতদেহ সৎকার করা হবে।’ এদিকে হাতির মৃত্যুর কথা ছড়িয়ে পড়তেই এলাকার হাজার হাজার মানুষ ভিড় জমান মৃত হাতিটিকে দেখার জন্য। কেউ কেউ ফুল ছড়িয়ে ধুপ জ্বালিয়ে হাতিঠাকুরকে শেষ বারের মতো শ্রদ্ধাও জানাচ্ছেন।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব