স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: হাতির হানায় মৃত্যু হল এক বৃদ্ধার৷ বাঁকুড়ার বড়জোড়ায় ঘটনাটি ঘটেছে৷ মৃতের নাম বিশাখা মণ্ডল (৭৩)৷ বৃহস্পতিবার বড়জোড়া থানার ডাকাআসিনি গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে৷

এলাকাবাসী জানান, প্রত্যেকদিনের মত এদিনও ভোরে প্রাতঃকৃত্য করতে জঙ্গলে গিয়েছিলেন বিশাখাদেবী৷ সেই সময় জঙ্গলের তিনটি আবাসিক হাতির সামনে পড়ে যান৷ কিছু বুঝে ওঠার আগেই তিন হাতির দলে থাকা একটি তাঁকে শুঁড়ে তুলে মাটিতে আছাড় মারে৷ ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ওই মহিলার৷

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপে বেঁচে থাকার লড়াই অস্ট্রেলিয়ার

এদিকে ভোরে বাড়ি থেকে বের হয়ে বেলা গড়িয়ে গেলেও বাড়ি না ফেরায় সন্দেহ হয় বাড়ির লোকজনের৷ শুরু হয় খোঁজ৷ এরপরই জঙ্গলে রক্তাক্ত বিশাখাদেবীর মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেন তাঁরা৷ এই ঘটনা ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়৷

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন বনদফতরের কর্মীরা৷ তাদের ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান এলাকার লোকজন৷ গ্রামবাসীরা জানান, এখানে আবাসিক হাতি রয়েছে৷ সুতরাং সেদিকটা বনদফতরের মাথায় রেখে সেইমতো নিরাপত্তার বেড়াজাল তৈরি করা উচিৎ৷ যখন তখন লোকালয়ে হাতি ঢুকে যেতে পারে এই ভয়েই দিন কাটাতে হয় এলাকার লোকজনকে৷ এর থেকে মুক্তির পথ বের করতে হবে বনদফতরকেই৷ দাবি তোলেন এলাকার লোকজন৷

আরও পড়ুন: চোর-পুলিশের খেলায় শিয়ালদহে একঘণ্টা বন্ধ ট্রেন চলাচল

হাতির আক্রমণ রুখতে গ্রামবাসীরা জঙ্গল লাগোয়া গ্রামে ইলেকট্রিক বেড়া দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন৷ পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করে৷ নিয়ম অনুযায়ী মৃতের পরিবার যাতে সবরকম সরকারি সহায়তা পায় বনদফতর তা দেখার আশ্বাস দিয়েছে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.