স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: ফের হাতি হামলার আতঙ্ক ছড়াল বাঁকুড়া জেলায়। বৃহস্পতিবার রাতে ফের তিনটে হাতি হামলা করল বাঁকুড়ার একটি সরকারি স্কুলে। গ্রামবাসী সূত্রে জানা গিয়েছে, বড়জোড়ার গদারডিহি হাইস্কুলের দরজা ভেঙে স্কুলের মিড-ডে মিলের চাল খেয়ে যায় তিনটি হাতির একটি দল। সূত্রের খবর, হাতির হামলার কথা জানাজানি হতেই স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে ।

ক্রমাগত এই হাতিদের হামলা নিয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে স্থানীয় বাসিন্দা শুকদেব চট্টরাজ বলেন, প্রতিমাসেই কম বেশি হাতির হানায় মানুষের জীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠছে। তিনি আরও বলেন, হাতির আতঙ্কে বেশিরভাগ দিন তাঁদের রাতে না ঘুমিয়ে জেগেই কাটাতে হচ্ছে৷ শুকদেব বাবু অভিযোগের সুরে জানিয়েছেন, বনদফতরের কর্মীরা সচেষ্ট থাকলে হয়ত পরিস্থিতি এতটা ভয়ঙ্কর হত না।

আরও পড়ুন : চুরি করতে এসে মন্দিরেই ঘুমিয়ে পড়ল চোর, তারপর….

গদারডিহি হাইস্কুলের শিক্ষক স্নেহাশীষ পান বলেন, এই নিয়ে পরপর দু’বার জঙ্গল লাগোয়া এই স্কুলটি হাতির হানার শিকার হল। প্রতিবারই মিড-ডে মিলের চাল-ডাল খেয়ে যাওয়ায় স্কুলে মিড-ডে মিল ব্যবস্থা ঠিকমত চালানোই এখন মুশকিল হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি আরও বলেন স্থানীয় জেলা প্রশাসনকে এই বিষয়টির ব্যাপারে জানানো হলে , প্রশাসনের তরফ থেকে কোনও কাজই হয়নি। তিনি জানান, বন দফতরের কর্মীরা এসে সরজমিনে সব দেখে গিয়েছেন । এই বিষয়ে তাঁরা সরকারি নিয়মানুযায়ী ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়েছেন ।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ অগস্ট এই স্কুলেই হামলা চালিয়েছিল আবাসিক হাতির একটি দল। সেই ঘটনার কয়েক সপ্তাহ যেতে না যেতেই ফের একই স্কুলে হাতির হামলা ঘিরে বন দফতরের দায়িত্বশীলতা নিয়েও গ্রামবাসীদের মনে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

বন দফতরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এই মুহূর্তে উত্তর বনবিভাগের বড়জোড়া রেঞ্জের শীতলা বীটে একটি এবং বেলিয়াতোড় রেঞ্জের বৃন্দাবন বীটে দুটি হাতি রয়েছে।