স্টাফ রিপোর্টার, বহরমপুর: কয়লা চালিত ট্রেন এখন আর তেমন কোথাও দেখা না গেলেও ডিজেলের ইঞ্জিন বেশ অনেক ট্রেনের ক্ষেত্রেই ব্যবহার করা হয়৷ এবার এই ডিজেল ইঞ্জিনেও আসতে চলেছে পরিবর্তন৷ সেই উপলক্ষে ডিজেলের পরিবর্তে বিদ্যুৎবাহী ট্রেনের পরীক্ষামূলক ভাবে ইঞ্জিন চালানো হল আজিমগঞ্জ-কাটোয়া রুটে৷

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ধরে ডিজেলের ইঞ্জিনেই মুর্শিদাবাদের আজিমগঞ্জ-কাটোয়া রুটে ট্রেন চলাচল করত৷ তবে সেক্ষেত্রে বহু সমস্যারই সম্মুখীন হতে হত যাত্রীদের৷ যাত্রীদের একাংশ জানিয়েছেন, ডিজেল ইঞ্জিন ট্রেন স্টেশনে ঢুকলে ডিজেলের অস্বাস্থ্যকর ধোঁয়া গোটা স্টেশনকে মুড়ে ফেলত৷ এই ধোঁয়ার জেরে অনেক ক্ষেত্রেই শ্বাসকষ্টের সমস্যা হতে দেখা যায় যাত্রীদের৷ এছাড়াও আরও নানা রকম সমস্যার মধ্যে পড়তে হয় যাত্রীদের৷

এই ধরনের নানা প্রকার সমস্যার জেরে যাত্রীরা দীর্ঘদিন ধরেই দাবি করেছিলেন ডিজেল ইঞ্জিনের পরিবর্তে বিদ্যুতবাহিত ট্রেন ইঞ্জিনের। তবে যাত্রীদের দাবিকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ৷ উল্লেখ্য, সেই দাবি রাখতেই বেশ কিছু দিন থেকে উদ্যোগ গ্রহণ করে রেল দফতর। আজিমগঞ্জ-কাটোয়া রুটে বৈদ্যুতিক তাড় লাগানোর কাজ ইতিমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। আর রবিবার দুপুরে পরীক্ষামূলক ভাবে এই রুটে দু’টি বৈদ্যুতিক রেল ইঞ্জিন চালানো হল। প্রায় ১০ দিন ধরে পরীক্ষামূলক ভাবে এই ইঞ্জিন চালানোর পর স্বাভাবিক ভাবে চলতে থাকবে বৈদ্যুতিক ট্রেন।

পাশাপাশি, এদিন কাজ খতিয়ে দেখতে আসেন রেলের উচ্চপদস্থ আধিকারিকেরা। তাঁরা জানান, আশা মতোই কাজ ক্রমশ এগিয়ে চলেছে৷ যাত্রীদের সুরক্ষা ও সুবিধার কথা মাথায় রেখেই এই কাজ৷ খুব শীঘ্রই কাজ শেষ হয়ে যাবে৷ তারপর থেকে স্বাভাবিক ভাবেই বৈদ্যুতিক ট্রেন চলাচল করবে৷ এই প্রসঙ্গে পাল্টা যাত্রীরা জানিয়েছেন, তাঁরা এই কাজে বেশ খুশি৷ ডিজেল ট্রেনের নানা প্রকার অসুবিধার কারণেই এই দাবি করেছেন যাত্রীরা৷ রেল কর্তৃপক্ষকে সাধুবাদ জানান যাত্রীরা৷ এত তাড়াতাড়ি যাত্রী সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে পরিকল্পনাকে বাস্তবায়িত করার জন্য৷