কলকাতা: আগামী ৮ জুন হতে চলেছে রাজ্যসভার নির্বাচন৷ পশ্চিমবঙ্গ থেকে ছটি আসনে হতে চলেছে নির্বাচন৷ আগামী ৮ অগস্ট রাজ্যসভার সাংসদ হিসাবে মেয়াদ শেষ হচ্ছে শাসকদল তৃণমূলের দোলা সেন, সুখেন্দ শেখর রায়, ডেরেক ও’ব্রয়ান ও দেবব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এছাড়া বিরোধী কংগ্রেস ও সিপিএমের রাজ্যসভার সাংসদ পদে মেয়াদ শেষ করছেন যথাক্রমে প্রদীপ ভট্টাচার্য ও সীতারাম ইয়েচুরী৷

আগামী ২২ মে থেকে বিভিন্ন দলের রাজ্যসভার প্রার্থীরা তাদের নমিনেশন জমা দিতে পারবেন৷ নমিনেশন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৯ মে৷ নমিনেশন তুলে নেওয়ার শেষ তারিখ ১ জুন৷ ৮ জুন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়া৷ ভোট গণনা হবে ওই দিন সন্ধ্যা ৫টা থেকে৷ ১০ জুনের মধ্যে শেষ করতে হবে রাজ্যসভার নির্বাচন৷

পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও গোয়া থেকে একটি আসনে, গুজরাত থেকে তিনটি আসনে রাজ্যসভার সাংসদ নির্বাচন হবে৷ গুজরাত থেকে বিজেপির হয়ে আবার রাজ্যসভায় পা রাখতে চলেছেন বস্ত্র মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি ও কংগ্রেস নেতা আহমেদ পাটেল৷ রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল সূত্রে খবর এবার রাজ্যসভার সাংসদ পদে দেবব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রার্থী নাও করা হতে পারে৷ অন্যদিকে রাজ্যসভাতেও জোট করেই পশ্চিমবঙ্গ থেকে প্রার্থী নির্বাচন করতে পারেন বাম ও কংগ্রেস৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।