নয়াদিল্লি: ২০১৯-এ আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে গেরুয়াকরণের লক্ষ্যে জোর ধাক্কা খেল বিজেপি৷ লোকসভাকে ফাইনাল এবং বিধানসভা নির্বাচনকে যেখানে সেমিফাইনাল হিসেবে দেখা হচ্ছিল, সেখানেই মঙ্গলবার হতাশা গেরুয়া শিবিরে৷ আর এই ভরাডুবি নিয়ে বিজেপির অন্দরমহলের গুঞ্জন এবার বেরিয়ে পড়ল প্রকাশ্যে৷

মঙ্গলবার, বিজেপির নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজি নিয়ে প্রশ্ন তুললেন খোদ রাজ্যসভার বিজেপি সাংসদ সঞ্জয় কাকাড়ে৷ তাঁর মতে, রাজস্থান এবং ছত্তিশগড়ে বিজেপির এই হতাশাজনক ফলাফল একপ্রকার নিশ্চিত ছিল৷ ২০১৪-তে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় আসার সময় যে উন্নয়ন-বিকাশের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, সেখান থেকে ফোকাস সরে গিয়ে মূর্তি তৈরি, স্থানের নাম পরিবর্তন, রামমন্দির ইস্যুতে মনোনিবেশ করেছে সকলে৷

পড়ুন: ছত্তিশগড়ে ৩৬ টুকরো হল বিজেপি

একদিকে ফসলের যথোপযুক্ত দাম না পেয়ে কৃষকদের আত্মহত্যা, কৃষিঋণ, লাভের সামান্য টাকা ক্ষোভে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে পাঠিয়ে দেওয়া যেমন মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে, তেমনই রয়েছে রাফায়েল, নোটবন্দির মতো ইস্যুগুলিতেও ধাক্কা খেয়েছে মোদী সরকারের ভাবমূর্তি৷ সেই সঙ্গে ভস্মে ঘি ঢালার মতোই কাজ করেছে যোগী আদিত্যনাথের নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্তগুলি৷ আর এগুলিকেই ফের একবার হাইলাইট করলেন বিজেপির সাংসদ সঞ্জয় কাকড়ে৷

পড়ুন: #Mission2019: রাজস্থানে থমথমে বিজেপি হেডকোয়ার্টার, উল্লাস কংগ্রেসের

প্রসঙ্গত, সন্ধ্যে ৬টা পর্যন্ত যে আপডেট পাওয়া গিয়েছে সেই অনুযায়ী, তেলেঙ্গানায় ক্ষমতায় রয়েছে টিআরএস৷ ৮৭টি আসনে এগিয়ে রয়েছে তারা৷ মধ্যপ্রদেশে ১১৬-তে এগিয়ে কংগ্রেস৷ মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেসকে সমর্থন করেছে সমাজবাদী পার্টি৷ মিজোরামে ২৬ আসনে এমএনএফ৷ সেখানে ১টি আসনে জয়ী বিজেপি৷ রাজস্থানে ১০২-এ এগিয়ে কংগ্রেস, অন্যদিকে ছত্তিশগড়ে ৬৩-তে এগিয়ে রয়েছে কংগ্রেস৷ তবে চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণার আগেই কংগ্রেস শিবিরে শুরু হয়ে গিয়েছে উৎসব৷

পড়ুন: #Mission2019: ভোট নিয়ে চুপ মোদী