কলকাতা: ভোটগ্রহণের দিন বুথের মধ্যে প্রার্থীদের এজেন্টদের উপর এবার বিশেষ নজরদারির চালাবে নির্বাচন কমিশন৷ এবার কোনও এজেন্ট কখন বুথ থেকে বের হচ্ছেন এবং ঢুকছেন, তা নথিভুক্ত করে রাখতে হবে ভোটকর্মীদের৷ ভোটগ্রহণের পর ওই নথি জমা দিতে হবে৷ কোনও এজেন্টকে জোর করে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠলে সংশ্লিষ্ট বুথের এজেন্টদের গতিবিধির নথি পরীক্ষা করে সত্যতা যাচা‌ই করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারবে কমিশন৷

রাজ্যে প্রত্যেক  ভোটের সময় শাসক দলের বিরুদ্ধে মূলত প্রার্থীদের পোলিং এজেন্টদের ভয় দেখানো ও বুথ থেকে বের করে দেওয়ার ভুরি ভুরি অভিযোগ ওঠে৷ কিন্তু এজেন্টদের ভয় দেখিয়ে বের করে দেওয়া হয়েছে, তার  প্রমাণ সেভাবে প্রতিষ্ঠিত করা যায় না৷ এই সমস্যা দূর করতে এবার উদ্যোগী হয়েছে নির্বাচন কমিশন৷ ভোটকর্মীদের প্রশিক্ষণের সময় এজেন্টদের গতিবিধির উপর কীভাবে নজরদারি করতে হবে, সেটা জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে৷ প্রতি বুথে প্রার্থীরা একজন করে এজেন্ট দিতে পারেন৷ ওই এজেন্টকে সেই বুথেরই ভোটার হতে হয়৷ বদলি এজেন্ট হিসাবে আরও দু’জনকে রাখতে পারেন প্রত্যেক প্রার্থী৷ তবে একই সময়ে একজন প্রার্থীর একজন এজেন্টই বুথের ভিতরে থাকতে পারেন৷ প্রার্থী বা তাঁর প্রধান নির্বাচনী এজেন্টের সুপারিশপত্রের ভিত্তিতে বুথের প্রিসাইডিং অফিসার এজেন্টদের পরিচয়পত্র ইস্যু করেন৷ এজেন্টদের ঢোকা ও বের হওয়ার প্রক্রিয়া নথিভুক্ত থাকার ফলে একজন প্রার্থীর একাধিক এজেন্টের বুথের মধ্যে থাকা আটকানো যাবে বলে কমিশন মনে করছে৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ