মুম্বই: লকডাউন না-মেনে রাস্তায় বেরনোয় ভাইকে কুপিয়ে খুন করল দাদা৷ চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে মুম্বইয়ের কান্দিভালি এলাকায়৷ ঘটনার তদন্তে নেমে ইতিমধ্যে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশজুড়ে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত প্রত্যেককে নিজের বাড়িতেই থাকতে অনুরোধ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷ দেশের মধ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মহারাষ্ট্র ও কেরলে সবচেয়ে বেশি৷ প্রতিদিনই আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাাড়ছে৷ শুক্রবার ১৪৪ জনের শরীরে পাওয়া গিয়েছে COVID19 ভাইরাস৷ মারা গিয়েছে ১৮ জন৷

এই পরিস্থিতিতে অন্যান্য অংশের পাশাপাশি বাণিজ্যনগরী মুম্বইতেই চলছে লকডাউন৷ মঙ্গলবার দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণার ঠিক পরের দিন অর্থাৎ বুধবার সন্ধ্যায় কান্দিভালিতে বাড়ি ছেড়ে আড্ডা মারতে বেরিয়েছিলেন ২৮ বছরের যুবক দুর্গেশ৷ বাড়ি থেকে না-বেরনোর জন্য ভাইকে বারবার নিষেধ করেন দাদা রাজেশ ও তাঁর স্ত্রী৷

দাদা-বৌদির কথায় কর্ণপাত না-করে বাড়ি ছেড়ে আড্ডা মারতে বেরিয়ে গিয়েছিলেন দুর্গেশ৷ ওই যুবক বাড়ি ফিরতে শুরু হয়ে যায় তুমুল অশান্তি৷ দাদা-বৌদির সঙ্গে তর্কাতর্কি শুরু হয়ে যায় দুর্গেশের৷ এরইমধ্যে ভাইকে ধারালো অস্ত্রের কোপ মারেন দাদা রাজেশ৷ যুবকের চিৎকারে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা৷ তারাই উদ্ধার করে নিয়ে যান হাসপাতালে৷ কিন্তু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে ওই যুবকের মৃত্যু হয়৷

অকস্মাৎ এই ঘটনায় হতচকিত এলাকার বাসিন্দারা৷ তদন্তে নেমে নিহত যুবকের দাদা ও বৌদিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷ তবে এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল ছড়িয়েছে৷ করোনা আক্রান্ত হয়ে ইতিমধ্যেই তিন জনের মৃত্যু হয়েছে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।