বার্সেলোনা: কারণে অকারণে কলকাতা লিগের ম্যাচ পিছিয়ে দেওয়ার নজির নেহাত কম নেই। তাই বলে লা-লিগার ম্যাচ স্থগিত রাখার উদাহরণ সাম্প্রতিক অতীতে চোখে পড়েনি। ঠিক তেমনটাই ঘটল স্প্যানিশ লিগে। তাও আবার আর পাঁচটা সাধারণ ম্যাচ নয়, বরং এল ক্লাসিকো মত হাইভোল্টেজ ম্যাচ আপাতত নির্ধারিত সূচি থেকে পিছিয়ে দেওয়া হল।

কাতালোনিয়ার স্বাধীনতা আন্দোলন ক্রমশ হিংসাত্মক রূপ নেওয়ায় একপ্রকার বাধ্য হয়েই ন্যু ক্যাম্পের এল ক্লাসিকো স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিতে হল লা লিগা কর্তৃপক্ষকে। আগামী ২৬ অক্টোবর ন্যু ক্যাম্পে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল স্প্যানিশ লিগের সব থেকে হাই-ভোল্টেজ বার্সেলোনা বনাম রিয়াল মাদ্রিদ ম্যাচ৷ তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে কাতালোনিয়ার বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলন ক্রমশ ছড়িয়ে পড়েছে বার্সেলোনার রাজপথ থেকে প্রশাসনিক কার্যালয় পর্যন্ত প্রায় সর্বত্র৷ ৯ জন বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতার গ্রেফতারির পর অগ্নিগর্ভ হয়েছে পরিস্থিতি৷ জায়গায় জায়গায় নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের খণ্ডযুদ্ধ চলছে।

তার উপর এল ক্লাসিকোর দিন কাতালুনিয়ার স্বাধীনতাকামীরা গন আন্দোলনের ডাক দিয়েছে৷ মিছিলে মিছিলে বার্সেলোনা শহর অবরুদ্ধ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ওই দিন। স্বাভাবিকভাবেই ২৬ অক্টোবর সুষ্ঠভাবে এল ক্লাসিকোর মতো বড় ম্যাচ আয়োজন নিয়ে সংশয়ে ছিল স্প্যানিশ ফুটবল সংস্থা।

সব দিক বিবেচনা করে লা লিগা কর্তৃপক্ষের তরফে বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদ, উভয় ক্লাবের কাছে অনুরোধ করা হয়ে প্রথম পর্বের এল ক্লাসিকো বার্সেলোনা থেকে সরিয়ে স্যান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে আয়োজনের জন্য৷ টুর্নামেন্ট কমিটির এই অনুরোধ যথাযথ হলেও বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদ, উভয় ক্লাবই এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে৷ অগত্যা রয়াল স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশন এল ক্লাসিকো পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

প্রাথমিকভাবে ১৬ ডিসেম্বর এল ক্লাসিকোর পরিবর্তিত দিন স্থির করা হয়েছিল। সেটাও প্রত্যাখ্যান করে বার্সেলোনা কর্তৃপক্ষ। তাই এক সপ্তাহ এগিয়ে ৭ ডিসেম্বর এর ক্লাসিকোর সম্ভাব্য পরিবর্তিত দিন স্থির করা হয়েছে। তবে সেটাও এখনও নিশ্চিত নয়।