ঢাকা: করোনাভাইরাসের ভয়াল হামলায় বিশ্ব কুঁকড়ে দিয়েছে। চলছে মৃত্যু মিছিল। এই অবস্থায় ফের একবার সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদ পালনের জন্য বাংলাদেশ সহ বিশ্ববাসীকে বার্তা দিলেন শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে বলেন, আপনার সুরক্ষা আপনার হাতে, মনে রাখবেন আপনি সুরক্ষিত থাকলে আপনার পরিবার সুরক্ষিত থাকবে, প্রতিবেশী সুরক্ষিত থাকবে, দেশ সুরক্ষিত থাকবে। করোনাভাইরাসে বাংলাদেশে বাড়ছে মৃত্যু।

স্বাস্থ্য অধিদফতর এবং ওয়ার্ল্ডোমিটার জানাচ্ছে, বাংলাদেশে গত করোনায় মৃতের সংখ্যা ৪৮০ জন। মোট করোনা রোগী ৩৩ হাজারের বেশি। মৃত ও সংক্রামিত রোগীর সংখ্যা বাড়ছেই। এই অবস্থায় সামাজিক দূরত্বের নিয়মকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ঘরমুখো ভিড়ের ঠেলায় বাংলাদেশে প্রবল সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, যে হারে ঢাকা থেকে সবাই দূরবর্তী এলাকায় যাচ্ছেন তাতে ঈদ পরবর্তী সময়ে সংক্রমণ বিরাট আকার নেবে। আরও অভিযোগ, সরকার লকডাউনের শিথিলতা আনায় রোগ ছড়াচ্ছে দ্রুত। তবে ভাষণে শেখ হাসিনা বলেন, আমরা ঈদের আগে স্বাস্থ্যবিধি এবং অন্যান্য নিয়মনকানুন মেনে কিছু কিছু দোকানপাট খুলে দেওয়ার অনুমোদন দিয়েছি। যারা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলেছেন এবং যারা দোকানে কেনাকাটা করতে যাচ্ছেন, আপনারা অবশ্যই নিজেকে সুরক্ষিত রাখবেন। ভিড় এড়িয়ে চলবেন। কিন্তু ঈদে বাড়ি ফেরার ভিড় বাড়িয়ে তুলছে আশঙ্কা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.