নয়াদিল্লি: ঈদের দিন ঘোষণা করলেন দিল্লির জামা মসজিদের শাহি ইমাম। শনিবার চাঁদ দেখা যায়নি। তাই ২৫ মে অর্থাৎ সোমবারই ইদ পালিত হবে বলে জানালেন ইমাম সৈয়দ আহমেদন বুখারি।

একইসঙ্গে করোনা পরিস্থিতিতে সব গাইডলাইন মেনে চলার কথা বলেন তিনি। হাত মেলানো বা কোলাকুলি করা থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। বলেছেন, সতর্কতা নেওয়া ও সোশ্যাল ডিসট্যান্স মেনে চলা খুবই জরুরি। সরকারের নির্দেশিকা মেনে চলতে হবে।

এবার ঈদ অন্যান্যবারের তুলনায় আলাদা। রমজানও ছিল অনেকটাই অন্যরকম। মুসলিমরা বাড়িতে বসেই এবার ইফতার সেরেছেন। নমাজ পড়তেও বাইরে যাননি অনেকে। তাই, ইদেও এবার প্রথা মেনে একসঙ্গে নমাজ পড়া হয়ত হবে না।

আগেই ইসলামের ধর্মীয় শিক্ষাকেন্দ্র দারুল উলুম দেওবন্দ তাদের এক নির্দেশিকায় মুসলিমদের এবার নিজেদের ঘরের ভেতরেই ঈদ পালন করতে বলেছে। দেওবন্দ বলেছে, মহামারি ঠেকাতে এবারের ঈদে বড় জমায়েত থেকে দূরে থাকাই উচিৎ।

প্রথা মেনে প্রতিবারের মতো সবাইকে নিয়ে যাতে ঈদ উদযাপন না-করা হয়, সে জন্য ‘হ্যাশট্যাগ নো ঈদ সেলিব্রেশন’ কিংবা ‘হ্যাশট্যাগ নো নিউ ক্লোদস ইন ঈদ’ সোশ্যাল মিডিয়াতেও ট্রেন্ড করছে।

১৭ কোটিরও বেশি মুসলিম থাকেন যে ভারতে। ফলে, স্বাভাবিকভাবেই ঈদের উদযাপন দেশের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসব।

কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারী ঠেকাতে যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নিদান সারা দেশকে মেনে চলতে বলা হচ্ছে, তাতে সাড়া দিয়ে ইসলামের ধর্মীয় নেতারাও এবারে শুধু নিজের পরিবারের ও বাড়ির মধ্যেই ঈদ পালন করার ডাক দিচ্ছেন।

সৌদি আরবে পবিত্র ঈদ উল ফিতর আগামী রবিবার উদযাপিত হবে। সেদেশে শুক্রবার পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। অর্থাৎ এ বছর সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে শনিবার রমজান পূর্ণ হবে।

গলফ নিউজ, খালিজ টাইমস ও আরব টাইমসে প্রতিবেদন অনুযায়ী, শুক্রবার সৌদি আরবের কোথাও শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। তাই আগামী রবিবার ঈদ উদযাপিত হবে বলে জানিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ।

এবার সৌদি আরবে ঈদের নমাজ নিজ নিজ ঘরেই করতে হবে। কারণ করোনা পরিস্থিতিতে ঈদের ছুটির সময় সেখানে কার্ফু ঘোষণা করা হয়েছে। ঈদের সময় মসজিদগুলো বন্ধ থাকবে।

সৌদি গেজেট–এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, শুক্রবার বিকেল ৫ টা থেকে দেশটিতে কার্ফু জারি করা হয়েছে। আগামী ২৭ মে পর্যন্ত এই কার্ফু জারি থাকবে।