স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মাধ্যমিক-উচ্চ মাধ্যমিক থেকে শুরু করে এই সমতুল প্রায় সমস্ত পরীক্ষারই ফলাফল প্রকাশিত হয়ে গিয়েছে। বিগত মাসেই বিভিন্ন বোর্ডের পরীক্ষাগুলির ফলাফল প্রকাশের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। এবার শিক্ষা জীবনের নতুন আঙিনায় পাড়ি দেবেন কুঁড়িরা। তাই তাদের সঠিক শিক্ষার ঠিকানার হদিশ দিয়ে উজ্জ্বল ভবিষ্যত উপহার দিতে শহর কলকাতার বক্ষে শুরু হল ‘শিক্ষা মেলা।’ নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে তিন দিন ধরে চলবে ‘Education interface 2019’

প্রত্যেক বছরই এই মেলার আয়োজন করা হয়। এবছর career planner edu fair এই মেলার আয়োজন করল। ১ জুন থেকে ৩ জুন পর্যন্ত চলবে এই মেলা। পূর্ব ভারতের নিরিখে ‘Education interface 2019’ এক বৃহৎ শিক্ষা মেলা। এই শিক্ষাসঙ্গমে পড়ুয়া, পড়ুয়াদের অভিভাবক এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এক ছাতার তলায় আসার সুযোগ পান। ফলে সরাসরি সুযোগ ঘটে পড়ুয়া ও শিক্ষাক্ষেত্রের মতামত বিনিময়ের।

কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা খরচ করে কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভরতি হয়ে অনেক পড়ুয়াই অভিযোগ করেন চাকরির সুযোগ পাচ্ছেন না তাঁরা। প্লেসমেনট পাচ্ছেন না, ক্যাম্পাসিং হচ্ছে না। এই ধরণের অভিযোগের সমাধান করে দিতেই আয়োজন ‘Education interface 2019’-এর। ইঞ্জিনিয়ারিং, মেডিক্যাল, হোটেল ম্যানেজমেনট, মিডিয়া এন্ড কমিউনিকেশন কোর্স, হসপিটালিটি বিজনেস, আইটিআই, নার্সিং, ফার্মাসিউটিক্যাল সায়েন্স এবং পলিটেকনিক সমস্ত বিষয়েই সঠিক শিক্ষাঙ্গন বেছে নিয়ে সুন্দর ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যাবার সুযোগ পাবেন পড়ুয়ারা। ১৫০ টি কলেজ এবং বহু ইউনিভার্সিটির একত্র সমাবেশ ঘটেছে ‘Education interface 2019-এ।

শনিবার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের উদ্বোধন করার কথা থাকলেও তিনি এসে উপস্থিত হতে পারেন নি। তবে মেলার মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন অ্যাসোসিয়েশন অফ প্রফেশনাল অ্যাকাডেমিক ইন্সটিটিউশনস’এর সভাপতি তরণজিত সিং, অ্যাসসিয়েশন অফ প্রফেশনাল অ্যাকাডেমিক ইন্সটিটিউশনস’এর ট্রেজার অলোক তিব্রেওয়াল, ক্যারিয়ার প্লানার এডু ফেয়ারের মুখ্য উপদেষ্টা দীপক সিনহা রায় প্রমুখ ছাড়াও বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ-উপাচার্যরা। এই তিনদিন সকাল ১১ টা থেকে সন্ধ্যে ৭ টা পর্যন্ত চলবে মেলা।