শ্রীনগর: ফের ইডি-র মুখোমুখি জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ফারুক আবদুল্লা। সোমবারের পর ফের বুধবার ফের তাঁকে ডেকে পাঠায় এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। কাশ্মীর ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনে কোটি-কোটি টাকার আর্থিক তছরুপের তদন্তে বর্ষীয়ান এই রাজনীতিবিদকে সোমবারের পর ফের বুধবার জিজ্ঞাসাবাদ করেন ইডি-র আধিকারিকরা।

রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই তাঁকে বারবার ডেকে পাঠিয়ে বিব্রত করা হচ্ছে বলে এদিন পাল্টা অভিযোগ তুলেছেন ফারুক আবদুল্লা।

ফের ইডি-র জিজ্ঞাসাবাদ জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ফারুক আবদুল্লাকে। কাশ্মীর ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনে প্রায় ৪৪ কোটি টাকা তছরুপের অভিযোগের ভিত্তিতেই এদিন ফের তাঁকে জিজ্ঞাসবাদ করেন তদন্তকারী অফিসাররা।

গৃহবন্দি দশা থেকে মুক্ত হয়েও স্বস্তি মিলছে না ফারুক আবদুল্লার। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার জেরেই বারবার তাঁকে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে বলে এদিন অভিযোগ করেছেন ন্যাশনাল কনফারেন্স সুপ্রিমো।

এদিকে, ফারুক আবদুল্লাকে ইডি-র জিজ্ঞাসাবাদ প্রসঙ্গে টুইটে তাঁর ছেলে তথা জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা লিখেছেন, ‘‘বাবার ৮৪তম জন্মদিনে ইডি ডেকে পাঠাল। কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা ফেরানোর দাবিতে এককাট্টা হয়েছে উপত্যকার সব রাজনৈতিক দল। জোটবদ্ধভাবে দাবি পূরণের জন্য কর্মসূচি নেওয়া হবে বলে ঠিক করেছে দলগুলি।

সম্প্রতি শ্রীনগরে ফারুক আবদুল্লার বাড়িতে গুরুত্বপূর্ণ একটি বৈঠক হয়েছে। সেই বৈঠকে উপত্যকার বিভিন্ন দলের নেতারা ছিলেন। ফারুক আবদুল্লার নেতৃত্বেই কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা ফেরানোর দাবিতে শান্তিপূর্ণ পথে আন্দেলন গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সেই বৈঠকের পরপরই ফারুক আবদুল্লাকে বারবার ইডি-র ডেকে পাঠানোর ঘটনায় ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলেছে বিজেপি বিরোধী দলগুলি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।