স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়কে নোটিশ দিল কেন্দ্রীয় সংস্থা ইডি। সারদা-কাণ্ডে আর্থিক কেলেঙ্কারি সংক্রান্ত জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য তাঁকে তলব করা হচ্ছে বলে ইডি সূত্রে খবর।

আগামী ১২ জুলাই তাঁকে হাজিরা দিতে হবে। সারদা থেকে অভিনেত্রী শতাব্দীকে কত টাকা দেওয়া হয়েছিল, কেন ওই টাকা দেওয়া হয়েছিল. চুক্তির সব নথি বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে বলে জানা গিয়েছে৷

আরও পড়ুন: সব্যসাচীকে মেয়র পদ থেকে পদত্যাগ করতে বলবে তৃণমূল

বীরভূমের তিনবারের সাংসদ শতাব্দী রায়৷ ১২ই জুলাই তাঁকে বেলা ১২টার মধ্যে ইডি’র সিজিও কমপ্লেক্সের দফতরে হাজিরা দিতে বলা হয়েছে। বেআইনি আর্থিক প্রতিষ্ঠান সারদার একটি সংস্থার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর ছিলেন তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়। বিভিন্ন তথ্য গেঁটে দেখা গিয়েছে ওই সংস্থার সঙ্গে তাঁর আর্থিক লেনদেন হয় বলে দাবি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার। কী কারণে কোন চুক্তির ভিত্তিতে ওই আর্থিক লেনদেন হয়েছে তা জানতেই শতাব্দী রায়কে তলব করা হয়েছে বলে ইডি সূত্রে খবর৷

এর আগেই সারদা চিটফান্ড দুর্নীতি মামলায় তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়কে তলব করা হয়েছিল৷ বছর দু’য়েক আগে তাঁকে তলব করে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই৷ সেবার এই অভিনেত্রী-সাংসদের দক্ষিণ কলকাতার বাড়িতে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চালান সিবিআই গোয়েন্দারা৷

আরও পড়ুন: চাঞ্চল্যকর ভিডিও, ২৫ জনকে দড়ি দিয়ে বেঁধে ‘গোমাতা কি জয়’ বলতে বাধ্য করা হল

চিটফান্ড মামলায় গতি বাড়িয়েছে সিবিআই৷ লোকসভা ভোটের আগে থেকেই সারদা ও রোজভ্যালি মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হচ্ছে বিভিন্ন ব্যক্তিদের৷ রোজভ্যালি মামলায় গ্রেফতার করা হয় প্রযোজক শ্রীকান্ত মোহতাকে৷ অন্যদিকে, সারদা মামলায় শুক্রবারই সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে হাজিরা দেন চিত্রশিল্পী শুভাপ্রসন্ন এবং প্রাক্তন সিপিএম নেতা লক্ষণ শেঠ। সারদা কাণ্ডে শুভাপ্রসন্নের যোগ রয়েছে বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা। একটি চ্যানেলে যুক্ত থাকার সুবাদে সারদা সংস্থার সঙ্গে কোনও আর্থিক লেনদেন হয়েছিল কিনা তা নিয়ে প্রায় ৪ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় তাঁকে৷

এছাড়াও কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল তথা রাজ্য সরকার গঠিত সিটের প্রধান রাজীব কুমারকেও জিজ্ঞাসাবাদ চালায় সিবিআই৷ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে শিলংয়ে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ চালানো হয়৷ ডাকা হয়েছিল বিধাননগর কমিশনারেটের তৎকালীগোয়েন্দা প্রধান ও সিটের সদস্য আইপিএস অর্ণব ঘোষকে৷ জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় সিটের অন্যান্য সদস্যদেরও৷ তাঁদের রাজীব কুমার ও অর্ণব ঘোষ কি নির্দেশ দিতেন তা জানতে চাওয়া হয়৷ বহু চর্চিত লাল ডায়েরি ও পেন ড্রাইভ সমন্ধেও জানতে চাওয়া হয়৷