নয়াদিল্লি: কংগ্রেস দলের এক বিরাট ছন্দপতন৷ হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী বীরভদ্র সিংয়ের ৫.৬কোটি টাকার বেআইনী সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট৷

চলতি বছরে গত মার্চ মাসেই আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তি থাকার কারণে তার বিরুদ্ধে চার্জশিট পেশ করেছিল সিবিআই৷ বীরভদ্রা সিং এবং তাঁর স্ত্রী প্রতিভা সিং সম্পত্তি সংক্রান্ত দুর্নীতিতে জড়িয়ে থাকার ফলে তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে সিবিআই৷

গতকালই হিমাচল প্রদেশের ভোটের নির্ঘন্ট প্রকাশ করেছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন৷ আগামী ৯ই নভেম্বর হবে নির্বাচন৷ ফল ঘোষণা হবে ১৮ই নভেম্বর৷ বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে নির্বাচনের দিন প্রকাশ করেছে কমিশন৷ সেই নির্ঘন্ট প্রকাশের পরই এই অভিযান চালিয়েছে ইডি৷

ইডির তরফে জানানো হয়েছে, স্থাবর এবং অস্থাবর সম্পত্তিসহ প্রায় ৬কোটি বেআইনী সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে৷ যেগুলি বীরভদ্রা সিংয়ের স্ত্রী, ছেলে এবং মেয়ের নামে ছিল বলে জানা গিয়েছে৷ এই সম্পত্তির মধ্যে রয়েছে দিল্লির একটি ফার্ম হাউজও৷ বিক্রমাদিত্য সিং এবং অপরাজিতা সিংয়ের নামে ৬৪লক্ষ টাকা শেয়ার বরাদ্দ করা ছিল বলে ইডি জানিয়েছে৷ এছাড়াও দিল্লি এবং সিমলার দুটি ব্যাংকে ৬০লক্ষ টাকা ফিক্সড ডিপোসিট করা রয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷

২০১৫সালে ২৩সেপ্টেম্বর ভারতীয় দন্ড সংহিতার অধীনে ১০৯ নম্বর ধারায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছিল৷ বীরভদ্রা সিং এবং তাঁর স্ত্রী এই মামলার ক্ষেত্রে পাল্টা অভিযোগ এনেছিলেন৷ তারা দাবী করেছেন, আদালতের কোনওরকম কোনও নির্দেশ ছাড়াই সিবিআই তাদের ব্যক্তিগত বিষয়ে এইভাবে হস্তক্ষেপ করতে পারেনা৷ কিন্তু এই অভিযোগ জানালেও তাদের প্রস্তাব প্রত্যাখান করে দেওয়া হয়৷ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬তে সিবিআই এই মামলা জারি করে দুর্নীতি দমন আইনের অধীনে৷ এরপরই এই ঘটনাটিকে নিয়ে তদন্ত শুরু হয়৷
বীরভদ্রা সিং এবং তাঁর স্ত্রী প্রতিভা সিং সম্পত্তি সংক্রান্ত দুর্নীতিতে জড়িয়ে থাকার ফলে তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে সিবিআই

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প