নয়াদিল্লি: কংগ্রেস দলের এক বিরাট ছন্দপতন৷ হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী বীরভদ্র সিংয়ের ৫.৬কোটি টাকার বেআইনী সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট৷

চলতি বছরে গত মার্চ মাসেই আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তি থাকার কারণে তার বিরুদ্ধে চার্জশিট পেশ করেছিল সিবিআই৷ বীরভদ্রা সিং এবং তাঁর স্ত্রী প্রতিভা সিং সম্পত্তি সংক্রান্ত দুর্নীতিতে জড়িয়ে থাকার ফলে তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে সিবিআই৷

গতকালই হিমাচল প্রদেশের ভোটের নির্ঘন্ট প্রকাশ করেছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন৷ আগামী ৯ই নভেম্বর হবে নির্বাচন৷ ফল ঘোষণা হবে ১৮ই নভেম্বর৷ বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে নির্বাচনের দিন প্রকাশ করেছে কমিশন৷ সেই নির্ঘন্ট প্রকাশের পরই এই অভিযান চালিয়েছে ইডি৷

ইডির তরফে জানানো হয়েছে, স্থাবর এবং অস্থাবর সম্পত্তিসহ প্রায় ৬কোটি বেআইনী সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে৷ যেগুলি বীরভদ্রা সিংয়ের স্ত্রী, ছেলে এবং মেয়ের নামে ছিল বলে জানা গিয়েছে৷ এই সম্পত্তির মধ্যে রয়েছে দিল্লির একটি ফার্ম হাউজও৷ বিক্রমাদিত্য সিং এবং অপরাজিতা সিংয়ের নামে ৬৪লক্ষ টাকা শেয়ার বরাদ্দ করা ছিল বলে ইডি জানিয়েছে৷ এছাড়াও দিল্লি এবং সিমলার দুটি ব্যাংকে ৬০লক্ষ টাকা ফিক্সড ডিপোসিট করা রয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷

২০১৫সালে ২৩সেপ্টেম্বর ভারতীয় দন্ড সংহিতার অধীনে ১০৯ নম্বর ধারায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছিল৷ বীরভদ্রা সিং এবং তাঁর স্ত্রী এই মামলার ক্ষেত্রে পাল্টা অভিযোগ এনেছিলেন৷ তারা দাবী করেছেন, আদালতের কোনওরকম কোনও নির্দেশ ছাড়াই সিবিআই তাদের ব্যক্তিগত বিষয়ে এইভাবে হস্তক্ষেপ করতে পারেনা৷ কিন্তু এই অভিযোগ জানালেও তাদের প্রস্তাব প্রত্যাখান করে দেওয়া হয়৷ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬তে সিবিআই এই মামলা জারি করে দুর্নীতি দমন আইনের অধীনে৷ এরপরই এই ঘটনাটিকে নিয়ে তদন্ত শুরু হয়৷
বীরভদ্রা সিং এবং তাঁর স্ত্রী প্রতিভা সিং সম্পত্তি সংক্রান্ত দুর্নীতিতে জড়িয়ে থাকার ফলে তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে সিবিআই

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।