নয়াদিল্লি: দ্রুত অর্থনৈতিক বিকাশ এবং নগরায়ণের জেরে চরম দারিদ্র্যের মধ্যে থাকা মানুষের সংখ্যা রীতিমতো কমে আসবে ২০২১ সালে এবং তার এক দশকের মধ্যে এই চরম দারিদ্র পুরোপুরি মুছে যাবে৷ সোমবার কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি এমনটাই দাবি করেছেন৷

বিশ্ব ব্যাংকের রিপোর্ট অনুসারে ২০১১ সালে শেষ জনসংখ্যা গণনার সময় ভারতের ১৩০ কোটি জনগণের মধ্যে ২১ শতাংশ বাস করত ১.৯০ডলারের কম টাকায় ৷

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে অর্থনৈতিক ইস্যু প্রাধান্য পাচ্ছে ৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আর্থিক অবস্থার উজ্জ্বল দিক তুলে ধরতে গেলে বিশেষত প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস তা প্রত্যাখ্যান করেছে ৷ তারই প্রেক্ষিতে এবার জেটলি যিনি এবাবের নির্বাচনে বিজেপির প্রচার দফতরের প্রধান জানিয়েছেন, যারা দারিদ্র সীমায় বসবাস করে তাদের সংখ্যা ১৫ শতাংশের তলায় নেমে আসবে আগামী দুই-তিন বছরে এবং তার পরের দশকে তা একেবারে অগ্রাহ্য করার মতো স্তরে নেমে যাবে৷

নগরায়ন বাড়ছে ফলে মধ্যবিত্তের সংখ্যা বাড়ছে এবং অর্থনৈতিক সম্প্রসারণ হচ্ছে বলেই জেটলি ফেসবুকে জানিয়েছেন৷ এরফলে নতুন কর্মসংস্থানের সংখ্যা বাড়ছে এবং মুক্ত অর্থনীতির গত তিন দশকের অভিজ্ঞতা বলছে দেশের সমস্ত কোনার মানুষের সুবিধা হচ্ছে৷