নয়াদিল্লি: মুসলিমদের ভোট ভাগ করা নিয়ে সতর্ক করার জন্য এবার কমিশনের শো-কজ নোটিশ পেলেন কংগ্রেস নেতা নভজ্যোত সিং সিধু। বিহারে ভোট যাতে ভাগাভাগি না হয়, তার জন্য মুসলিমদের সতকফ করেছিলেন তিনি। আর তাঁর এই মন্তব্যের বিরুদ্ধে কমিশনের দ্বারস্থ হয় বিজেপি।

শনিবার এই ইস্যুতে তাঁকে শো-কজ নোটিশ দেওয়া হয়েছে। ধর্মের নামে রাজনীতির অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে।

নভজোত সিং সিধুর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে মঙ্গলবার লিখিত আকারে নালিশ জানায় বিজেপি। বিহারে এক জনসভায় মুসলিমদের উদ্দেশে সিধু আর্জি জানান, ‘নরেন্দ্র মোদীকে একটি ভোট দেবেন না।’ তার প্রেক্ষিতেই বিজেপির বিহার ভাইস প্রেসিডেন্ট দেবেশ কুমার কমিশন অভিযোগ করেন। তাঁর বক্তব্য, সিধুর এমন মন্তব্য সাম্প্রদায়িক হিংসা ও দাঙ্গায় ইন্ধন জোগাবে।

বিহারের কাটিহার লোকসভা কেন্দ্রে আয়োজিত এক সভায় ভাষণ দিতে গিয়ে পাঞ্জাবের মন্ত্রী সিধু বলেন, বিজেপি বিভেদ সৃষ্টিকারী প্রচার চালাচ্ছে এবং মুসলিম ভোটারদের ভোট ভাগাভাগি সম্পর্কে সাবধান করে দেন।

তিনি বলেন, এ অঞ্চলে মুসলিমরাই সংখ্যাগুরু। একই সঙ্গে তিনি সম্প্রদায়গত ভাবে অটুট থেকে কংগ্রেসের জয় সুনিশ্চিত করার আহ্বান জানান।

সিধু বলেন বিজেপি আসাউদ্দিন ওয়েইসির আইমিম দলের মাধ্যমে প্রার্থী দাঁড় করিয়ে বিহারে মুসলিম ভোটে বিভাজন আনতে চাইছে।

গত ৭ এপ্রিল সাহারানপুর ও বেরিলিতে প্রায় এ ধরনেরই মন্তব্য করেছিলেন মায়াবতী। বসপা নেত্রীর এই মন্তব্যের জেরে তাঁকে দু দিনের জন্য প্রচার থেকে বরখাস্ত করেছে নির্বাচন কমিশন।

সেদিনের সভায় মায়াবতী বলেছিলেন, “কংগ্রেস এখানে বিজেপির সঙ্গে লড়ার পক্ষে যথেষ্ট নয়, এবং আমি আপনাদের সকলকে, বিশেষ করে মুসলিমদের বলতে চাই যে আপনারা কংগ্রেসকে একটি ভোট দেওয়ার মানে বিজেপিকে সাহায্য করা। আপনাদের ভোট ভাগাভাগি করবেন না।”