স্টাফ রিপোর্টার, মথুরাপুর: সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের প্রচারের শেষ দিনে জমে উঠেছে রাজনৈতিক নেতানেত্রীদের পরস্পরের প্রতি আক্রমণ। বৃহস্পতিবার যা চরমে উঠল তৃণমূল নেত্রী তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর কথায়।

এদিন দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার মথুরাপুরে নির্বাচনী জনসভায় হাজির ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই জনসভা থেকেই প্রকাশ্যে বিজেপি এবং নির্বাচন কমিশনকে আক্রমণ করেন তিনি। প্রকাশ্য জনসভায় দাঁড়িয়েই তিনি বলেন যে নির্বাচন কমিশন হচ্ছে বিজেপির ভাই।

বুধবার সাত দফার ভোটের প্রচার নিয়ে যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন। সেই সিদ্ধান্ত অনুসারে, আজ অর্থাৎ বৃহস্পতিবার রাত ১০টার পর থেকে কোনও রাজনৈতিক দল পশ্চিমবঙ্গে প্রচার করতে পারবে না। রবিবার রাজ্যের তিন জেলার আট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ। নিয়ম অনুসারে, শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রচার শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ২০ ঘণ্টা আগেই প্রচার শেষ করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। সংবিধানের ৩২৪ ধারা অনুযায়ী এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

এই বিষয়টি নিয়েই বেজায় চটেছেন তৃণমূলনেত্রী। তিনি বলেছেন, “গত রাতেই আমি জানতে পেরেছি যে বিজেপি নির্বাচন কমিশনে আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছে যাতে নরেন্দ্র মোদীর সভার পরে আর কোনও সভা করতে না পারি। নির্বাচন কমিশন এবং বিজেপির ভাই হয়ে গিয়েছে। কমিশন আগে নিরপেক্ষ সংস্থা ছিল কিন্তু এখন দেশের সবাই বলছে যে নির্বাচন কমিশন বিজেপির কাছে বিক্রি হয়ে গিয়েছে।”

নির্বাচন কমিশনের মতো সংস্থার বিরুদ্ধে এই ধরণের অভিযোগ যে মারাত্মক অপরাধ সেই বিষয়ে অবগত রয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। এটিও সভায় দাঁড়িয়ে স্পষ্ট করে দিয়েছেন তিনি। তাঁর কথায়, “আমার এটা বলতে খারাপ লাগছে কিন্তু আমি বাধ্য হয়ে বলছি। এই ধরণের মন্তব্যের জন্য আমি জেলে যেতেও প্রস্তুত। সত্যি বলতে আমি ভয় পায় না।”

বৃহস্পতিবার রাজ্যের দুই জায়গায় সভা করার কথা রয়েছে নরেন্দ্র মোদীর। যার মধ্যে একটি দক্ষিণ ২৪ পরগনার মথুরাপুরে এবং অপরটি উত্তর ২৪ পরগনার দমদমে। শুক্রবারে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় সভা করার কথা ছিল তৃণমূল নেত্রীর। নির্বাচন কমিশনের নয়া নির্দেশ অনুসারে মোদীর সভার ক্ষেত্রে কোনও বিলম্ব ঘটছে না কিন্তু ভেস্তে যাচ্ছিল মমতা শুক্রবারের সভা। যদিও বৃহস্পতিবারেই দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার মথুরাপুর এবং ডায়মন্ড হারবারে সভা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।